• শিরোনাম

    স্কুলের ক্লাস বন্ধ রেখে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন সংবাদ প্রকাশের জেরে সাংবাদিকদের পথরোধ করে হুমকি

    গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধিঃ | বৃহস্পতিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২ | পড়া হয়েছে 9 বার

    স্কুলের ক্লাস বন্ধ রেখে শিক্ষার্থীদের মানববন্ধন সংবাদ প্রকাশের জেরে সাংবাদিকদের পথরোধ করে হুমকি
    apps

    গাইবান্ধার সুন্দরগঞ্জে সংবাদ প্রকাশের জেরে পথরোধ করে ‘আজকের পত্রিকা’র উপজেলা  প্রতিনিধি জাহিদুল ইসলাম জাহিদকে বিভিন্ন ধরণের গালিগালাজ করে হুমকি দিয়েছে  বামনডাঙ্গা বালিকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারি শিক্ষক মোস্তাফিজুর রহমান। মঙ্গলবার (২০ সেপ্টেম্বর) রাত সাড়ে ৯ টার দিকে উপজেলার বামনডাঙ্গা শাপলা কুড়ির আসর  ক্লাব চত্বরে এ ঘটনা ঘটে। জাহিদুল ইসলাম জাহিদ সুন্দরগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক। প্রথমে রাত সাড়ে ৮ টার দিকে সুন্দরগঞ্জ প্রেসক্লাবের কোষাধ্যক্ষ সুদীপ্ত শামীমকে  দেখে বামনডাঙ্গা বালিকা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের এক শিক্ষিকার স্বামী ও সুন্দরগঞ্জ ডি  ডবিøউ ডিগ্রি কলেজের অবসরপ্রাপ্ত শিক্ষক মরতুজ আলী এবং বামনডাঙ্গা বালিকা উচ্চ  বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শহীদুল ইসলাম শহীদ গত ৩০ আগস্ট “স্কুলের ক্লাস বন্ধ রেখে মানববন্ধন  সড়ক অবরোধ” শিরোনামে প্রকাশিত খবর নিয়ে তর্কে জড়িয়ে পড়েন এবং বিভিন্ন কটূক্তি  করেন। একপর্যায়ে তারা বলেন স্কুল বন্ধ রেখে মানববন্ধন ও সড়ক অবরোধ করার কথা পত্রিকায়  লিখেছেন এটা ঠিক হয়নি। কিন্তু তারা পত্রিকায় দেখানোর চেষ্টা করেও ব্যর্থ হন। পরে তারা  বিভিন্ন পত্রিকার অনলাইন বের করে দেখান। সেখানে লেখা রয়েছে ক্লাস বন্ধ রেখে মানববন্ধন ও  সড়ক অবরোধ করা হয়েছে। স্কুল বন্ধ রেখে মানববন্ধন ও সড়ক অবরোধ করা হয়েছে এ লেখাটি কোন  পত্রিকায় তারা দেখাতে না পেরে রুদ্র মূর্তি ধারণ করেন।  এঘটনার ঘন্টাখানিক পর আবারও সংবাদ প্রকাশের জের ধরে গত মঙ্গলবার রাতে  বামনডাঙ্গায় শাপলা কুড়ির আসর চত্বরে সংবাদ সংগ্রহের কাজে গেলে বামনডাঙ্গা বালিকা  সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মোস্তাফিজুর রহমান সাংবাদিকদের পথ আটকে  বলেন, ‘আপনার কি করতে পারি, আপনি কি সেটা জানেন? আরে আমার নানা সাংবাদিক  সভাপতি। কি পরিচয় দিব? আমাদের সব স্টাফ মিলে গাইবান্ধা গিয়ে ইয়া দিয়ে আচ্ছি। আমরা  ক্লাস নিছি ভাই স্কুল থেকে বের হয়নি। উনি আমাদের দেখছে নাকি? নিউজ করলো হাকাউ,  ক্লাস নেওয়া হয়নি মানে? শোনেন, আপনি এই নিউজটি করবেন কেন, আপনি কোন  এখতিয়ারে করলেন। আপনি নিউজ করতে পারেন না। প্রতিবাদ করব জাতীয় পত্রিকায় আনবো।  ফালতু নিউজ করেন বালের সাংবাদিক। ফাইজলামি করেন। সরকারী লোকের বিরুদ্ধে নিউজ করলেন।  কি বুঝেন, ওনি আমার কি করতে পারবে। আমার ভগ্নীপতি বাংলাদেশ প্রতিদিনের নিউজ  এডিটর লাখ টাকা বেতন পায়। আপনাকে হ্যালো করলে কি হবে বুঝেন। আর আমার হেডমাস্টার  তো ঠসা।’ উল্লেখ্য, গত ৩০ শে আগস্ট মঙ্গলবার সকাল ১০টা থেকে দুপুর সাড়ে ১২টা পর্যন্ত  বামনডাঙ্গা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয় ও বামনডাঙ্গা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা  বিদ্যালয় সংলগ্ন সুন্দরগঞ্জ-রংপুর সড়কে বিদ্যালয়ে যাতায়াতের সড়ক মেরামতের দাবিতে ক্লাস  বন্ধ রেখে মানববন্ধন করেন। মানববন্ধন ও সড়ক অবরোধ কর্মসূচি পালিত হলেও এ সময় স্কুল  দুটিতে কোনো ক্লাস নেওয়া হয়নি। সেই সঙ্গে মানববন্ধন ও সড়ক অবরোধ শেষে বিদ্যালয়  দুটি ছুটি দেওয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন এলাকাবাসী। এ নিয়ে বিভিন্ন আঞ্চলিক ও জাতীয়  পত্রিকায় সংবাদ প্রকাশিত হয়। এরপর বামনডাঙ্গা বালিকা উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে  শোকজ করেন উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিস এবং বামনডাঙ্গা বালিকা সরকারি প্রাথমিক  বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষককে শোকজ করেন উপজেলা শিক্ষা অফিস। এ নিয়েও বিভিন্ন পত্রিকায়  সংবাদ প্রকাশ হয়। শোকজ নোটিশের জবাবে তারা দুঃখ প্রকাশ ও ক্ষমা প্রার্থনা করেন। প্রত্যক্ষদর্শী সুন্দরগঞ্জ প্রেসক্লাবের সভাপতি মোশারফ হোসেন বুলু বলেন, সংবাদ  প্রকাশের জের ধরে তারা তর্কে জড়িয়ে পড়েন এবং বিভিন্ন কটূক্তি করেন। তাদের কথাবার্তা ও  আচরণে আমরা ভয় পেয়ে যাই। কারণ এই বামনডাঙ্গাতেই ২০১৩ সালে ৪ জন পুলিশ সদস্যকে করা হয়েছে। একজন এমপিকে গুলি করে হত্যা করা হয়েছে। আমরা এ ঘটনার তীব্র নিন্দা ও  প্রতিবাদ জানাচ্ছি। সেইসাথে এঘটনায় জড়িতদের আইনের আওতায় এনে শাস্তি দাবি  করছি।’  এবিষয়ে গাইবান্ধা জেলা শিক্ষা অফিসার মো. হারুনর রশিদ দুঃখ প্রকাশ করে বলেন,  ‘সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের একজন সহকারি শিক্ষক সাংবাদিকদের সাথে এহেন আচরণ  করতে পারেনা। বিষয়টি খতিয়ে দেখা হবে।’ পথরোধ করে সাংবাদিকদের হুমকির বিষয়ে গাইবান্ধা জেলা পুলিশ সুপার মো. তৌহিদুল  ইসলাম বলেন, ‘আপনাদের বিষয়টি আমি খোঁজ খবর নিয়ে দেখতেছি’।

    বাংলাদেশ সময়: ৮:৩৮ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২২

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ