• শিরোনাম

    সিরাজগঞ্জের ৫০ কি.মি মহাসড়কে তীব্র যানজট

    টি এম এ হাসান, সিরাজগঞ্জ : | বৃহস্পতিবার, ১৪ অক্টোবর ২০২১ | পড়া হয়েছে 61 বার

    সিরাজগঞ্জের ৫০ কি.মি মহাসড়কে তীব্র যানজট
    apps

    ঢাকা-উত্তরবঙ্গ মহাসড়কের সিরাজগঞ্জের নলকা সেতুর কিছু অংশ ভেঙ্গে যাওয়ায় এবং সেখানে শুধু মাত্র একপাশ দিয়ে যান চলাচল করার পাশাপাশি মহাসড়ক ভেঙ্গে ছোট ছোট গর্ত সৃষ্টি হওয়ার ফলে সিরাজগঞ্জের মহাসড়কের সবগুলো রাস্তায় তীব্র যানজট দেখা দিয়েছে। এতে জেলার সর্বমোট ৫০ কিলোমিটার এরও বেশি মহাসড়ক জুড়ে তীব্র যানজট রয়েছে। যাতে ভোগান্তিতে পড়েছেন লাখ লাখ যাত্রী ও অন্তত ২০হাজারের বেশি ছোট বড় যানবাহন। হাইওয়ে পুলিশ সূত্রে যানজট একদিকে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম হতে নলকা সেতু হয়ে ঢাকা-উত্তরবঙ্গ মহাসড়কের ঢাকা-বগুড়া মহাসড়কের চান্দাইকোনা পেড়িয়ে বগুড়ার দিকে, ঢাকা-রাজশাহী মহাসড়কের কাছিকাটা ১০নং সেতু পার হয়ে নাটোরের দিকে ও ঢাকা-পাবনা মহাসড়কেও এই যানজট ছড়িয়ে গেছে। এতে কম করে জেলার প্রায় ৫০কিলোমিটার মহাসড়কে তীব্র যানজট রয়েছে। বিষয়টি বৃহস্পতিবার সকাল ১০টায় নিশ্চিত করেছেন হাটিকুমরুল হাইওয়ে গোলচত্বর এলাকার দায়িত্বরত ট্রাফিক ইন্সপেক্টর (টি.আই) মো. রফিকুল ইসলাম। তিনি বলেন, যানজট একদিকে টাঙ্গাইল ও অন্যদিকে নাটোর ও বগুড়া জেলার মধ্যে পৌঁছে গেছে। তবে আমরা যানজট নিরসনে সর্বোচ্চ চেষ্টা করে যাচ্ছি। এদিকে গতকাল রাত ২টা থেকে এখনো একই জায়গায় দাড়িয়ে আছে হাজার হাজার যানবাহন। যার ফলে চরম দূর্ভোগে পড়েছেন লাখো যাত্রী। ভোগান্তি পৌঁছে গেছে চরমে। পেশাগত কাজে ঢাকা থেকে কুষ্টিয়া যাবার পথে গতকাল রাত ২টায় বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম মহাসড়কের মুলিবাড়ি এলাকায় আটকে পড়েছেন প্রকৌশলী মোস্তাকিম। তিনি জানান, গতকাল রাত ২টার দিকে এখানে বাস দাড়িয়েছে। এখন পর্যন্ত একটুও আগাতে পারেনি। তিনি বলেন, ঈদের মহাসড়কেও এমন যানজট ও দুর্ভোগ কখনো দেখিনি। যাত্রীরা সবাই ভীষণ ভোগান্তিতে আছেন বলেও জানান তিনি। এছাড়াও দীর্ঘ সময় মহাসড়কে আটকা পড়ে যাত্রীদের খুধা নিবারণে একমাত্র ভরসা এখন মহাসড়কের অস্থায়ী ফেরিওয়ালারা। কিন্তু এই যানজটের ভোগান্তি থেকে আপাতত রক্ষা পাওয়ারও কোনও আশা দেখছেন না তারা। হাটিকুমরুল গোলচত্বর এলাকার দায়িত্বরত ট্রাফিক ইন্সপেক্টর (টি.আই) মো. রফিকুল ইসলাম বলেন, নলকা সেতু ভেঙ্গে যাওয়ায় সেতুর একপাশদিয়ে যান চলাচল করাতে হচ্ছে। এতে একদিকের গাড়ি বন্ধ রেখে আরেক দিকের গাড়ি চলাতে হচ্ছে। এছাড়াও সেতুটি চড়মভাবে ঝুকিপূর্ণ হওয়ায় সেটাও চলাচল করাতে হচ্ছে খুব সাবধানে ও ধীরে। এছাড়াও সেতুর আশেপাশের মহাসড়ক ভেঙে ভেঙে ছোট-বড় গর্ত তৈরি হয়েছে। যার ফলে গাড়ি চাইলেও জোরে চলতে পারেনা। মূলত এই কারনেই যানজট বলেও জানান এই কর্মকর্তা। উল্লেখ্য, মঙ্গলবার (১২ অক্টোবর) নলকা সেতুটি ভেঙে গেলে সেদিন রাত থেকে যানজট শুরু হলেও গতকাল রাতে তা তীব্র আকার ধারণ করেছে। োএতে বঙ্গবন্ধু সেতু পশ্চিম হতে উত্তরবঙ্গের সিরাজগঞ্জের মহাসড়কের সর্বমোট প্রায় ৫০কিলোমিটার এলাকাজুড়ে এই যানজটে ভোগান্তিতে পড়েছে হাজার পরিবহন ও লাখো যাত্রীরা।

    বাংলাদেশ সময়: ১১:৫৯ পূর্বাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ১৪ অক্টোবর ২০২১

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ