• শিরোনাম

    সাদুল্লাপুরে জমি নিয়ে দু ভাইয়ের দ্বন্দ্ব এখন চরমে।

    সাদুল্লাপুর (গাইবান্ধা)প্রতিনিধি -- | শনিবার, ২৫ ডিসেম্বর ২০২১ | পড়া হয়েছে 159 বার

    সাদুল্লাপুরে জমি নিয়ে দু ভাইয়ের দ্বন্দ্ব এখন চরমে।
    apps

    – গাইবান্ধার সাদুল্লাপুরের ইদিলপুর ইউনিয়নের একবারপুর গ্রামে বাবার রেখে যাওয়া জমি সঠিক ভাগবাটোয়ারা ও জবর দখল নিয়ে দু ভাইয়ের দ্বন্দ্ব চরম আকার ধারণ করেছে।যে কোন সময় হতে পারে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ। তাই নিরুপমা হয়ে বড় ভাই জাহাঙ্গীর আলম ছোট্ট ভাই সাইদ ড্রাইভার এর বিরুদ্ধে বাদী হয়ে তিনজন কে অভিযুক্ত করে ধাপের হাট পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে একটি লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছে। অভিযোগ সূত্রে জানা যায় যে, গত ৫ মাস পূর্বে সাইদ ও জাহাঙ্গীর আলম এর পিতা খালেকদার রহমান মৃত্যু বরণ করেন।বাবার মৃত্যু পর তারা ভাই বোনেরা মিলে পিতার রেখে যাওয়া সম্পত্তি সমুহ নিজেরা নিজেদের অংশ নিয়ম অনুযায়ী ভাগ বাটোয়ারা করে নেয়। এমতাবস্থায় ২০ শতাংশ জমির মধ্যে জাহাঙ্গীর আলমের ভাগের ১০ শতাংশ জমি নিতে গেলে বর্গা চাষী একই গ্রামের মৃত্যু আজগর আলীর পুত্র আমিরুল ইসলাম বাঁধা প্রদান করেন। ছোট ভাই সাইদ ও তার স্ত্রী পারভীন আক্তার বর্গা চাষী আমিনুলের সাথে আঁতাত করে উল্টো ১ লক্ষ টাকা দাবী করে জমিতে চাষাবাদে বাঁধা প্রদান করছে জাহাঙ্গীর আলম কে। জাহাঙ্গীর আলম এ বিষয়ে ছোট ভাই কে জিজ্ঞেসা করলে সে জানায় বাবা নাকি আমিরুলের নিকট উক্ত জমি এক লক্ষ টাকায় বন্দক রেখেছে। বড় ভাই জাহাঙ্গীর আলম বলেন, যদি বাবা বন্ধক রেখেই থাকেন তাহলে স্ট্যাম্পে বাবার স্বাক্ষর নেই কেন, সে স্ট্যাম্পে তোমাদের স্বাক্ষর। আর যদি বন্ধক খুলতে হয় তাহলে সবাই মিলে খুলতে হবে। কিন্তু তাতেও ছোট ভাই আপত্তি জানান।উল্টো বলছে কিছু হোক তোমাকে (বড় ভাই জাহাঙ্গীর আলম) এক লাখ টাকা দিতে হবে না হলে জমি হবে না। ১ লক্ষ টাকা না দিয়ে জমিতে উঠলে রক্তের বন্যা বয়ে দিবেন বলে জাহাঙ্গীর কে হুমকি প্রদান করেন। তারা শুধু হুমকি দামকী দিয়েই শান্ত নেই গত ১৩ ডিসেম্বর ছোট্ট আমি বাড়িতে না থাকার সুবাদে চকশোলাগাড়ী মৌজার ২৮ শতাংশ জমিতে লাগানো ভুট্টা মহেন্দ্র ট্রাক্টর দিয়ে চাষ করে নষ্ট করে জবর দখল করে অন্য ফসল লাগানোর চেষ্টা করছে।এতে আমার ক্ষতি হয়েছে ৪০ হাজার টাকা।তাছাড়া তারা প্রতিনিয়ত আমাকে ও আমার পরিবারকে হত্যা করবে বলে হুমকি প্রদান করেছে। এতে এটা প্রতীয়মান হয় যে,সাইদ আমিরুল ইসলামের সাথে আঁতাত করে সাইদ গভীর ষড়যন্ত্র করছে। স্হানীয় ভাবে বিষয়টি সমাধানের চেষ্টা করে ব্যর্থ হয়ে গন্যমান্য ব্যক্তিদের পরামর্শে আমি (জাহাঙ্গীর আলম) ধাপেরহাট পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে একটি লিখিত অভিযোগ করি। বাদী ও একাধিক এলাকাবাসী জানায় বিবাদী আমিনুল ইসলাম ও সাইদ মিয়া এলাকায় অনেকটা ব্যাপরোয়া প্রকৃতির। তারা বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ভাবে এলাকাবাসীর ক্ষতি করে তাদের ফাঁয়দা হাসিল করে অনেক পরিবারকে পথে বসিয়েছে। এবার তারা জাহাঙ্গীর কে টার্গেট করে ফাঁয়দা হাসিলের চেষ্টা করছে।তারা আমিনুল সাইদের সঠিক বিচার দাবী করেন। অভিযোগের বিষয়টি স্বীকার করে ধাপেরহাট পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ পরিদর্শক ইনচার্জ সেরাজুল হক বলেন,বিষয়টি ক্ষতিয়ে দেখে প্রয়োজনীয় ব্যবস্হা গ্রহণ করা হবে।আপাতত আসামিদের কে উক্ত জমিতে না যাওয়ার জন্য মৌখিক ভাবে জানানো হয়েছে।

    বাংলাদেশ সময়: ২:১৩ অপরাহ্ণ | শনিবার, ২৫ ডিসেম্বর ২০২১

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ