• শিরোনাম

    সাদুল্লাপুরের ধাপেরহাটের ত্রাস হিসাবে ক্ষ্যাত একাধিক মামলার আসামি মামুন মন্ডল গ্রেফতার

     সাদুল্লাপুর (গাইবান্ধা) | শনিবার, ১৪ মে ২০২২ | পড়া হয়েছে 87 বার

    সাদুল্লাপুরের ধাপেরহাটের ত্রাস হিসাবে ক্ষ্যাত একাধিক মামলার আসামি মামুন মন্ডল গ্রেফতার
    apps

    প্রতিনিধি গাইবান্ধার সাদুল্লাপুরের ধাপেরহাটের ত্রাস হিসাবে ক্ষ্যাত একাধিক মামলার আসামি মামুন মন্ডল কে পালানপাড়ার নিজ বাসা থেকে আটক করেছে পুলিশ। গ্রেফতারকৃত আবদুল্লাহ আল মামুন মন্ডল খামার পাড়া গ্রামের মান্না মন্ডলের পুত্র। গত ১০ মে নিজপাড়া গ্রামের মৃত কুতুবউদ্দিন সরকারের পুত্র ধাপেরহাট কেবল নেটওয়ার্কের ডিস সংযোগ কারী আবদুল গোফফার সরকার কালামকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে হত্যার উদ্দেশ্য এলোপাতাড়ি আঘাত করতে থাকলে দৌড়ে প্রাণে রক্ষা পায়।তার দেয়া অভিযোগে করা মামলায় মামুন মন্ডল কে ধাপেরহাট পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রের ইনচার্জ সেরাজুল হক তাকে গ্রেফতার করে। মামলা সূত্রে জানা যায় যে,আব্দুল্লা আল মামুন মন্ডল বিভিন্ন সময় কালামের নিকট থেকে নেশা করার জন্য টাকা দাবী করতো। নেশা করার টাকা দিতে অস্বীকার করায় কিছুদিন পূর্বে তার সাথে তর্ক বির্তক হয়। এরি জের ধরে আসামী মামুন মন্ডল চরম শত্রুতা পোষণ করিতে থাকে।সেই সূত্র ধরেই গত ১০ মে দুপুর ২ টার দিকে কেবল নেটওয়ার্ক সংযোগকারী কালাম তার বাড়ির সামন দিয়ে যাওয়ার সময় পথ রোধ করে পরিকল্পিত ভাবে ধারালো অস্ত্রের আঘাতে ক্ষত বিক্ষত করে।এতে করে ক্ষত স্হানে চারটি সেলাই দিতে হয়েছে। এলাকাবাসীরা জানায়, মামুন মন্ডল বিভিন্ন সময় নিরীহ মানুষের উপর চরাও হ’য়ে চাঁদা দাবী করে।চাঁদা না দিলে অন্যায় অত্যাচার, জবর দখল অকথ্য ভাষায় গালাগাল, চড় থাপ্পর মাইরা এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করে ফায়দা হাসিল করে আসছে। সাধারণ মানুষ তার অত্যাচারে অতিষ্ঠ হলেও মান সন্মানের ভয়ে লিখিত অভিযোগ করতেও সাহস করেনি। গত কয়েক মাস পূর্রে নিরীহ হোটেল শ্রমিকে এলোপাতাড়ি আঘাতে আহত করলে এলাকাবাসী তার বিচার চেয়ে মানব বন্ধন করেছিলো। গত ১০ মে ডিস সংযোগ কারী কালাম এলাকায় নিরীহ সাদা মনের মানুষ হিসাবে পরিচিত। তাকে কুপিয়ে হত্যা করতে চেয়েছে মামুন। কালামকে মারার কারণে ক্ষোপে ফাটছিলো মানুষ। তাকে পুলিশ সময় মত গ্রেফতার না করলে যে কোন সময় হতে পারতো রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ।তাছাড়া তার বিরুদ্ধে রংপুর পীরগঞ্জ থানায় করা দ্রুত বিচার ট্রাইবুনাল আইনে মামলা বিচারাধীন রয়েছে যাহার মামলা নং১/১৮ ২০ফেব্রুয়ারী। তার গ্রেফতারে এলাকায় বইছে শান্তির সু-বাতাস স্বস্তিতে সাধারণ জনগন। এ বিষয়ে ধাপেরহাট পুলিশ তদন্ত কেন্দ্রে ইনচার্জ সেরাজুল হক বলেন,তার বিরুদ্ধে একাধিক মামলা রয়েছে তাছাড়া বিভিন্ন সময় সে এলাকায় ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করার জন্য নিরীহ অসহায়,এমনকি রাজনৈতিক নেতাদের উপর চরাও হয়েছে । তারা আমাকে জানালেও লিখিত অভিযোগ না করায় তার বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্হা নিতে পারি নাই।তাছাড়া আমার পূর্বের অফিসাররা মাদকের অভিযোগে একাধিক বার তার বাসা বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ছিলো বলে জানতে পারি। তাকে আদালতের মাধ্যমে তাকে কারাগারে পাঠিয়ে দেয়া হয়েছে।

    বাংলাদেশ সময়: ২:২৪ অপরাহ্ণ | শনিবার, ১৪ মে ২০২২

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ