• শিরোনাম

    সততা, মেধা ও আন্তরিকতার সাথে কাজ করতে হবে : সংবর্ধিত অনুষ্ঠানে সুপ্রীম কোর্ট আপিল বিভাগ বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম :

     পিসি দাস, দিনাজপুর | রবিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২২ | পড়া হয়েছে 11 বার

    সততা, মেধা ও আন্তরিকতার সাথে কাজ করতে হবে : সংবর্ধিত অনুষ্ঠানে সুপ্রীম কোর্ট আপিল বিভাগ বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম :
    apps

    ঃ বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্ট আপীল বিভাগের বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম আইনকে দু’ভাবে ব্যাখা করা যায় উল্লেখ করে বলেন, সততা, নিষ্ঠা ও আন্তরিকতার সাথে দায়িত্ব পালন করা সকলের নৈতিক দায়িত্ব ও কর্তব্য। মেধা থাকলেই সফলতা পাওয়া যায় না। কর্মদক্ষতা ও পরিশ্রমী হতে হবে। তিনি আইনকে রক্ষণশীল উল্লেখ করে আরও বলেন, আইন দেশের স্বাধীনতা স্বার্বভৌমত্ব ও গণতন্ত্রকে রক্ষা করার একটি হাতিয়ার। ঠিক তেমনি মানুষের কল্যানে আইনকে কাজে লাগাতে হবে। আইন ও সংবিধানের শপথকে স্মরণ করে কাজ করতে হলে সততা, মেধা ও আন্তরিকতার সাথে কাজ করতে হবে। দেশকে এগিয়ে নেয়ার জন্য সকলকে সহযোগিতা করতে হবে। তিনি বলেন, আমি যখন যে দায়িত্ব পালন করি, বোঝার চেষ্টা করি, আর্ন্তরিকতার সাথে চেষ্টা করি এবং মাথার মধ্যে সংবিধান রাখী, আইন রাখি এবং আমি সবসময় মনে করি যে, আইনে দু’ধরনের ব্যাখ্যা দেওয়ার সুযোগ আছে। আইন নিয়ে রক্ষণশীল ব্যাখ্যা দিতে পারি আবার আইনকে উদারভাবে মানুষের কল্যাণে, রাষ্ট্রের সার্বিক কল্যাণে কিভাবে আইনকে প্রয়োগ করা যায় সেইভাবে ব্যাখ্যা দেওয়ার সুযোগ রয়েছে। আমি এই দ্বিতীয়টা সবসময় অনুসরণ করার চেষ্টা করি, আমার আইন আছে, সংবিধান আছে, সেই আইন ও সংবিধান দিয়ে আমার বাংলাদেশকে রক্ষা করতে হবে। আমার সার্বভৌমত্ব রক্ষা করতে হবে, আমার মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে সমুন্নত রাখতে হবে। আমার দেশের মানুষের সার্বিক কল্যাণ কিভাবে হবে, সেভাবে আমাকে আইনের ব্যাখ্যা দিতে হবে। সুতরাং আইনের রক্ষণশীল ব্যাখ্যা কোনভাবেই কাম্য নয়। তিনি দীর্ঘদিনের মামলাগুলো দ্রুত নিষ্পত্তির জন্য বিচার বিভাগের বিচারক ও কর্মকর্তাদের আন্তরিকতার সাথে কাজ করতে হবে। তাহলেই মানুষ হয়রানির স্বীকার হবে না। সম্মান পাওয়ার চেয়ে সম্মান রক্ষা করা খুবই কঠিন উল্লেখ করে তিনি আরও বলেন, দায়িত্বের সাথে আমাদের কাজ করতে হবে। মানবিক মুল্যবোধকে মানুষের কল্যানে উৎস্বর্গীত করতে হবে। ২৫ ফেব্রুয়ারী শুক্রবার বিকাল ৪টায় দিনাজপুর চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আদালতের সম্মেলন লক্ষে বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্ট আপীল বিভাগের বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ প্রাপ্ত হওয়ায় বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিমকে বিচার বিভাগ দিনাজপুরের আয়োজনে সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সংবর্ধিত অতিথি ও প্রধান অতিথি বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিম এসব কথা বলেন। দিনাজপুর সিনিয়র জেলা ও দায়রা জজ আজিজ আহমদ ভূঞার সভাপতিত্বে বক্তব্য রাখেন হাবিপ্রবির ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড.এম কামরুজ্জামান, জেলা প্রশাসক খালেদ মোহাম্মদ জাকী, পুলিশ সুপার মোহাম্মদ আনোয়ার হোসেন বিপিএম, পিপিএম (বার), নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইব্যুনালের বিচারক (সিনিয়র জেলা দায়রা জজ) শরীফ উদ্দিন আহমেদ, স্পেশাল জেলা ও দায়রা জজ মোঃ মাহমুদুল করিম, চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট বিএম তারিকুল কবীর, জেলা সিভিল সার্জন ডাঃ এ এইচ এম বোরহান-উল-সিদ্দিকী, দিনাজপুর গণপুর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী মোঃ কুতুব-আল-হোসাইন প্রমুখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন দিনাজপুর জেলা যুগ্ম জেলা জজ এসএম তাসকিনুল হক। আলোচনা সভা শেষে বাংলাদেশ সুপ্রীম কোর্ট আপীল বিভাগের বিচারপতি হিসেবে নিয়োগ প্রাপ্ত হওয়ায় বিচারপতি এম. ইনায়েতুর রহিমকে ক্রেস্ট ও ফুল দিয়ে সংবর্ধিত করেন দিনাজপুর বিচার বিভাগ।

    বাংলাদেশ সময়: ১:৩৮ অপরাহ্ণ | রবিবার, ২৭ ফেব্রুয়ারি ২০২২

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ