• শিরোনাম

    শ্রীমঙ্গলে রিডিং এন্ড রাইটিং হসপিটালের উপকরণ বিতরণ ও ৮টি ভাষায় রচিত বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

    আফজল হোসেইন মঙ্গলবার, ২৮ নভেম্বর ২০২৩

    শ্রীমঙ্গলে রিডিং এন্ড রাইটিং হসপিটালের উপকরণ বিতরণ ও ৮টি ভাষায় রচিত বইয়ের মোড়ক উন্মোচন

    apps

    ২৮ নভেম্বর ২০২৩ : শ্রীমঙ্গলে “রিডিং এন্ড রাইটিং হসপিটাল”-এর উপকরণ বিতরণ করেছে বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা ব্রেকিং দ্য সাইলেন্স।

    আজ মঙ্গলবার (২৮ নভেম্বর ২০২৩) সকাল ১১টায় সংস্থার আলোয়-আলো প্রকল্পের মাধ্যমে শ্রীমঙ্গলের ২২টি এবং কমলগঞ্জের ১০টি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ মোট ৩২টি বিদ্যালয়ে “রিডিং এন্ড রাইটিং হসপিটাল” পরিচালনার জন্য বর্ণ শেখার লুডু,শব্দ শেখার লুডু, শিক্ষক ও শিক্ষার্থীদের ম্যানুয়াল, পোষাকসহ প্রয়োজনীয় উপকরণসমুহ বিতরণ এবং চা বাগানের প্রচলিত ৮টি ভাষায় রচিত বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করা হয়েছে।

    উপজেলা পরিষদের সম্মেলন কক্ষে আয়োজিত এ অনুষ্ঠানে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আলী রাজিব মাহমুদ মিঠুনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন শ্রীমঙ্গল উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ভানু লাল রায়।

    বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা শিক্ষা অফিসার (ভারপ্রাপ্ত) জ্যোতিষ রঞ্জন দাশ , সহকারী উপজেলা শিক্ষা অফিসার আবুল হাসনাৎ মোহাম্মদ জহিরুল ইসলাম ভূঞা, আরপি নিউজের সম্পাদক, সাপ্তাহিক নতুন কথা’র বিশেষ প্রতিনিধি, বিশিষ্ট কলামিস্ট ও গবেষক কমরেড সৈয়দ আমিরুজ্জামান; বাংলাদেশ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় প্রধান শিক্ষক সমিতির মৌলভীবাজার জেলা শাখার সভাপতি জহর তরফদার, ব্রেকিং দ্য সাইলেন্সের লিডার প্রকল্পের সমন্বয়কারী পারভেজ কৈরী, বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টির শ্রীমঙ্গল উপজেলা শাখার সভাপতি কমরেড দেওয়ান মাসুকুর রহমান সহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

    এছাড়াও শ্রীমঙ্গলের ২২টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ এ অনুষ্ঠানে উপস্থিত হয়ে তাদের অভিজ্ঞতা তুলে ধরেন ও উপকরণসমূহ গ্রহণ করেন।

    সভাপতির বক্তব্যে উপজেলা নির্বাহী অফিসার আলী রাজিব মাহমুদ মিঠুন উপস্থিত সকল শিক্ষকগণকে ধন্যবাদ দিয়ে বলেন, এই কাজের সত্যিকারের প্রশংসার দাবিদার হলেন শ্রীমঙ্গল উপজেলার সকল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষকগণ।

    তিনি উপকরণগুলোর সঠিক ব্যবহার নিশ্চিত করে শিক্ষার্থীদের মধ্যে আগ্রহ তৈরী করার উপর বেশি গুরুত্ব দেন।

    তিনি আরো বলেন, আগামী বছরের ফেব্রুয়ারী মাসের মধ্যে শিক্ষার্থীদের অগ্রগতির একটি মূল্যায়ন করা হবে। রিডিং এবং রাইটিং হসপিটাল প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের শিখন ঘাটতি দূরীকরণ এবং পঠন ও লিখন দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য একটি অভিনব পদ্ধতি উল্লেখ করে তিনি এই উদ্যোগে শামিল হওয়ার জন্য আলোয় আলো প্রকল্পের দাতা সংস্থা চাইল্ডফান্ড কোরিয়া, এডুকো এবং বাস্তবায়নকারী সংস্থা ব্রেকিং দ্য সাইলেন্সকে বিশেষভাবে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

    ব্রেকিং দ্য সাইলেন্সের আলোয়-আলো প্রকল্পের প্রকল্প সমন্বয়কারী মো. রুবাইয়াৎ ফেরদৌস বলেন, আলোয়-আলো প্রকল্পটি চাইল্ডফান্ড কোরিয়া ও এডুকো’র অর্থায়নে চারটি সহযোগী সংস্থা ব্রেকিং দ্য সাইলেন্স, আইডিয়া, এমসিডা ও প্রচেষ্টা কর্তৃক ২০১৯ সাল থেকে শ্রীমঙ্গল ও কমলগঞ্জ উপজেলার ৩০টি চা বাগান ও ২টি হাওর এলাকায় শিশুদের প্রারম্ভিক শৈশব বিকাশ, শিক্ষা, পুষ্টি ও সুরক্ষার উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছে। এর মধ্যে আলোয়-আলো প্রকল্পের মাধ্যমে প্রাথমিক বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের পঠন ও লিখন দক্ষতা বৃদ্ধির জন্য রিডিং রাইটিং ও ড্রয়িং সেশনসহ শিক্ষকদের প্রশিক্ষণের ব্যবস্থা করা হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় ৩২টি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে এ উপকরণসমুহ প্রদান করা হলো।

    এছাড়া অনুষ্ঠানে অতিথিরা চা বাগানের ভাষায় সংকলিত “এসো শিখি আপন ভাষায়” নামে একটি বইয়ের মোড়ক উন্মোচন করেন। এই বইয়ে চা বাগানে প্রচলিত ৮টি ভাষায় ছড়া, গান, গল্প ও ধাঁধাঁ সংকলিত হয়েছে যাতে চা বাগানের শিশুরা পাঠ্যবইয়ের পাশাপাশি নিজ ভাষার চর্চা করতে পারবে বলে আশাবাদ ব্যক্ত করেন বক্তারা।

    বাংলাদেশ সময়: ৯:৪২ অপরাহ্ণ | মঙ্গলবার, ২৮ নভেম্বর ২০২৩

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ