• শিরোনাম

    শীতের আগমনে লেপ-তোশক বানানোর ধুম

    মোঃ সাইফুল ইসলাম ঠাকুরগাঁও প্রতিনিধি ; | শনিবার, ১৯ নভেম্বর ২০২২ | পড়া হয়েছে 41 বার

    শীতের আগমনে লেপ-তোশক বানানোর ধুম
    apps

    শীতের আগমনে ঠাকুরগাঁয়ের লাহিড়ী বাজারে ব্যস্ত সময় পার করছেন লেপ-তোশক কারিগরেরা। এবার শীতের আমেজ আগেই টের পাওয়ায় লেপ-তোশকের দোকানে ভিড় বাড়তে শুরু করেছে । তবে তুলা, লেপের কাপড়, ফোমের দাম ও মজুরি গত বছরের তুলনায় বেশি বলে জানিয়েছেন বিক্রেতারা। দেশের উত্তরের জনপদ ঠাকুরগাঁওয়ের লাহিড়ীতে সন্ধ্যা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গেই শীতের তীব্রতা দেখা দিচ্ছে। এই শীতে উষ্ণতা ছড়াতে লেপ-তোশক কম্বলের যেন জুড়ি নেই। এসব অঞ্চলে লেপ-তোশকের দোকানগুলোতে চলছে লেপ বানানোর ধুম, যেন দম ফেলার ফুরসত নেই তাদের।
    এবার জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে আশ্বিন-কার্তিক থেকেই মোটামুটি শীত শুরু হয়েছে। এর তীব্রতা বাড়বে বলে মনে করছেন অনেকেই। আগে শীত শুরু হওয়ার কারণে অর্ডার বেশি পাওয়ায় লেপ-তোশকের কারিগরেরা খুব ব্যস্ত সময় পার করছেন। আদি যুগ থেকে শীতের হাত থেকে বাঁচতে লেপের ব্যবহার যেন অপরিহার্যভাবে চলমান রয়েছে। তাই লাল কাপড়ে তুলা ভরিয়ে সেলাইয়ে ব্যস্ত সময় অতিক্রম করছেন লেপ-তোশকের কারিগরেরা।
    সরেজমিনে গিয়ে দেখা যায়, বালিয়াডাঈী ও লাহিড়ী বাজারে অর্ধশতাধিক লেপ-তোশকের দোকান রয়েছে। শীত মৌসুমি ব্যবসায়ীরা রেডিমেড লেপ তোশক তৈরি করে তা বিক্রি করছেন। লেপ কিনতে আসা গোলাম মোস্তাফিজুর রহমান বলেন, “আমি দুইটি লেপ ও দুইটি বালিশ কিনতে এসেছি। এবার তুলার দাম একটু বেশি। তাই লেপের দাম চড়া।”
    বালিয়াডাঈী উপজেলার চৌরাস্তায় দক্ষিণে ও লাহিড়ী বাজারে কাপড় পট্টিতে দেখা যায়, মেশিনে তুলা প্রস্তুত করে লেপ-তোশক বানানো হচ্ছে। এ ব্যাপারে লেপ-তোশক কারিগর মহসিন মিয়া বলেন, “প্রায় দুই মাস ধরে চলছে লেপ বানানোর কাজ। পুরো শীতজুড়ে চলবে এই কাজ। কাঁচামাল ও মজুরি মিলিয়ে এক একটি লেপের খরচ পড়ে প্রায় এক হাজার থেকে দেড় হাজার টাকা পর্যন্ত। তুলার বিভিন্ন ধরন অনুযায়ী লেপ বানানোর খরচ কিছুটা কম-বেশি হয়ে থাকে

    বাংলাদেশ সময়: ২:৪৬ অপরাহ্ণ | শনিবার, ১৯ নভেম্বর ২০২২

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ