• শিরোনাম

    রায়পুরায় প্রধানমন্ত্রীর উপহার পাকা ঘর পাচ্ছেন আরো ৭৫ টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার

    রায়পুরা (নরসিংদী)প্রতিনিধিঃশাহরিয়ার আহমেদ | বুধবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২৩ | পড়া হয়েছে 14 বার

    রায়পুরায় প্রধানমন্ত্রীর  উপহার পাকা ঘর পাচ্ছেন  আরো ৭৫ টি  ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার
    apps

    রায়পুরা উপজেলাকে ভূমিহীন ও গৃহহীন মুক্ত করার লক্ষ্যে আশ্রয়ণ প্রকল্প -২ এর আওতায় ৪থ পর্যায়ে আরও ৭৫ টি ঘর পাচ্ছেন ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবার। দেশের একটি পরিবার ও গৃহহীন থাকবে না বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের এ স্বপ্ন ও মুজিববর্ষে বঙ্গবন্ধুর কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুতি বাস্তবায়নে নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মোঃ আজগর হোসেন ও উপজেলা প্রশাসনের কর্মকর্তাগণ। জানাযায়, ২৪টি ইউনিয়ন ও একটি পৌরসভা নিয়ে গঠিত বৃহৎ উপজেলা রায়পুরায় প্রায় ৮ লাখ লোকের বসবাস।

    আশ্রয়ণ প্রকল্পের অধীনে ইতোমধ্যে ১ শত ২ টি ছিন্নমূল পরিবারকে দুই শতাংশ জমিসহ দুই কক্ষ বিশিস্ট সেমিপাকা ঘর নির্মাণ কাজ শেষ করে উপকার ভোগীদের হাতে ঘরের চাবি ও দলিল হস্তান্তর করেছেন উপজেলা প্রশাসন। ফলে মাথা গুজার ঠাঁই পেয়ে উপকার ভোগীরা স্বাবলম্বী হওয়ার পাশাপাশি জীবনযাত্রার মান উন্নতি হচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় রায়পুরা উপজেলাকে গৃহহীন মুক্ত ঘোষনা করার লক্ষ্যে আশ্রয়ন প্রকল্পের অধীনে ৪র্থ পর্যায়ে রায়পুরা, আদিয়াবাদ ও অলিপুরা ইউনিয়নে আরো ৭৫টি ঘরের কাজ নির্মাণাধীন রয়েছে।

    ঘর গুলোর নির্মাণ কাজ শেষে আগামী মার্চ মাসে উপকার ভোগীদের হাতে ঘরের চাবি ও দলিল হস্তান্তর করা হবে বলে জানা যায়। ঘরগুলো নির্মাণ কাজের মান নিয়ন্ত্রনে কঠোর পরিশ্রম করে যাচ্ছেন উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা প্রকৌশলী মো. বোরহান উদ্দিন ও রায়পুরা ইউনিয়ন ভূমি সহকারী আবু জাফর মোহাম্মদ শরিফ উদ্দিন। গত সোমবার বিকেলে ঘরগুলোর নির্মাণ কাজের অগ্রগতি পরিদর্শণ করে গেছেন নরসিংদী জেলা প্রশাসক ও জেলা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট আবু নইম মোহাম্মদ মারুফ খান।

    এ ব্যাপারে উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: আজগর হোসেন বলেন, আগামী মার্চে এ উপজেলার আশ্রয়ণ প্রকল্পের অধীনে ৭৫টি ঘরের নির্মাণ কাজ শেষ হওয়ার কথা রয়েছে এবং নির্মাণ কাজ শেষে ঘরের চাবি ও দলিল আনুষ্ঠানিক ভাবে উপকার ভোগীদের হাতে ঘরের দলিল ও চাবি বুঝিয়ে দেওয়া হবে।

    বাংলাদেশ সময়: ১০:৩৯ অপরাহ্ণ | বুধবার, ১৮ জানুয়ারি ২০২৩

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ