• শিরোনাম

    মিথ্যা প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

    রিপোর্টার খুরশীদ আলম | বৃহস্পতিবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২৩ | পড়া হয়েছে 59 বার

    মিথ্যা প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ
    apps

    কাশিমপুর প্রেসক্লাবের সভাপতি ও দৈনিক যুগান্তর প্রত্রিকার কাশিমপুর ও কোনাবাড়ি প্রতিনিধি আলহাজ মনির হোসেন মন্ডলের বিরুদ্ধে কয়েকটি গণমাধ্যমে গাজীপুর সিটির ২নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর পদপ্রার্থীর বিরুদ্ধে ১০ লাখ টাকা চাঁদা দাবির অভিযোগ, শিরোনামে একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। প্রকাশিত ওই সংবাদটির তীব্র প্রতিবাদ ও নিন্দা জানিয়েছেন কাউন্সিলর প্রার্থী আলহাজ্ব মনির হোসেন মন্ডল।

    তিনি তার প্রতিবাদে জানান, আমি কাশিমপুর থানার ২ নং ওয়ার্ডের স্থায়ী বাসিন্দা। আমি দীর্ঘদিন যাবত কাশিমপুর প্রেসক্লাবে সততা ও নিষ্ঠার সাথে সভাপতি দায়িত্ব পালন করে আসছি। সমাজে মানবিক কার্যকম এর সাথে সম্পর্কৃত থাকায় আগামী গাজীপুর সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে ওয়ার্ডের মুরুব্বী, যুবসমাজ ও অভিভাবকগণ আমাকে ২ নং ওয়ার্ডে কাউন্সিলর হিসেবে নির্বাচন করে নির্বাচিত হয়ে মানব সেবা করার জন্য আহ্বান জানায়। ছোটবেলা থেকে মানবসেবার মাধ্যমে বড় হওয়ায় আমিও তাদের পিরাপিরিতে নিজেকে কাউন্সিলের পদপ্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করা এবং মানবসেবা করার ইচ্ছা প্রকাশ করি।

    মানব সেবায় নিয়োজিত থাকায় আমাকে গাজীপুর মহানগর ২ নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক, কাশিমপুর থানা আওয়ামীলীগের সহ-প্রচার প্রকাশনা সম্পাদক এবং বিট পুলিশিং কমিটির কাশিমপুর থানার সাধারণ সম্পাদক দ্বায়িত্ব দেয়া হয়।

    প্রতিবাদে তিনি আরো জানান- যেহেতু কাউন্সিলর পদটি একটি সমাজ সেবা মূলক পদ এবং প্রতিদ্বন্দ্বিতার পথ পাড়ি দিতে হয়, তাই ২ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর পদপার্থী হিসেবে নির্বাচন করার ঘোষণা দেয়ার পর থেকে আমার কিছু প্রতিপক্ষ আমার বিরুদ্ধে কয়েকটি অনলাইন পোর্টাল ও প্রিন্ট মিডিয়ায় নানারকম মিথ্যা অপপ্রচার চালিয়ে তাদের হীনমন মানসিকতার বহিঃপ্রকাশ করছে এবং তারা আমার সুনাম বিনষ্ট করার অপচেষ্টায় লিপ্ত রয়েছে। আমি তাদের ষড়যন্ত্রমূলক সকল প্রকাশিত সংবাদের তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

    মনির মন্ডল বলেন যে, ১০ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবির অভিযোগের ভিত্তিতে কাশিমপুর ও কোনাবাড়ী থানার দায়িত্বরত কর্মকর্তা সহকারী পুলিশ কমিশনার চৌধুরী মোহাম্মদ তানভীর সরাসরি তদন্ত করেন এবং অভিযোগকারী হামিদ দেওয়ানকে সরোজমিনে জিজ্ঞাসা করলে তিনি তার জবানবন্দীতে জানায়, ১০ লক্ষ টাকা চাঁদা দাবির বিষয়ে তার কোনো সাক্ষী বা দালিলিক প্রমাণ নেই।
    তিনি আরো বলেন- যে একটি বিরোধপন্য জমিকে কেন্দ্র করে হামিদ দেওয়ান আমার বিরুদ্ধে আমার প্রতিপক্ষের সাথে যোগ দিয়ে আমার ক্ষতি করার স্বার্থে নানা মিথ্যা ও বানোয়াট সংবাদ প্রচার প্রকাশ করছে। হামিদ দেওয়ানের পরিবারের সদস্য ও আত্মীয় স্বজনরাই তার সাক্ষি।
    মনির মন্ডল বলেন- আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ ও মিথ্যা সংবাদ প্রচারের কারণে আমি সামাজিক ও মানসিকভাবে হ্যাঁয় প্রতিপন্ন হচ্ছি বিধায় আমি আদালতে একটি মামলা দায়ের করি। মামলা নং পি ৫৬/২৩ এবং সি আর ৪৯/২৩।
    মনির মন্ডল বলেন, আমি আমার বিরুদ্ধে বিভিন্ন সংবাদ মাধ্যমে ছাপা ও প্রকাশিত সকল সংবাদের আবারো তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।

    বাংলাদেশ সময়: ৫:৩০ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ১৯ জানুয়ারি ২০২৩

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ