• শিরোনাম

    ভাসুরের অত্যাচারে স্বামী সন্তান নিয়ে রাস্তায় মাজেদা

    একেএম নুরুল আমিন গাইবান্ধা, গাইবান্ধা: | সোমবার, ০৮ নভেম্বর ২০২১ | পড়া হয়েছে 39 বার

    ভাসুরের অত্যাচারে স্বামী সন্তান নিয়ে রাস্তায় মাজেদা
    apps
     জেলার সুন্দরগঞ্জে নিজের বসতবাড়ি ফিরে পাওয়াসহ নারী লোভীদের বিচারের দাবিতে সংবাদ সম্মেলন করেছেন মাজেদা বেগম নামে এক নির্যাতিতা গৃহবধূ। রোববার (৭ নভেম্বর) দুপুরে সুন্দরগঞ্জ প্রেসক্লাবে এ সংবাদ সম্মেলন করেন তিনি।   মাজেদা উপজেলার কঞ্চিবাড়ী ইউনিয়নের সতিরজান গ্রামের জিয়ারুল ইসলামের স্ত্রী। লিখিত বক্তব্য পাঠ করে মাজেদা বেগম জানান, তার স্বামী জীবিকার তাগিদে স্ত্রী-সন্তানকে বাড়িতে রেখে দীর্ঘদিন থেকে ঢাকায় অবস্থান করে রিক্সা চালাতো। এই সুযোগে তার স্বামীর আপন বড় ভাই জয়নাল মিয়া ও তার পরিবারের লোকজন বিভিন্ন সময়ে কারণে-অকারণে তাকে শারীরিক ও মানুষিকভাবে নির্যাতন করতে থাকে। এরই এক পর্যায়ে ভাসুর জয়নাল মিয়া মাজেদাকে কু-প্রস্তাব দেয়। তার এই কুপ্রস্তাবে রাজি না হয়ে প্রতিবাদ করলে মাজেদার শ্লীলতাহানিসহ শারীরিকভাবে নির্যাতন করে প্রাণনাশের হুমকি প্রদান করে। এরপর মাজেদা স্বামীর সাথে মোবাইলে পরামর্শ করে স্থানীয় সাবেক ইউপি সদস্য আশরাফুল ইসলাম ও স্থানীয় মিলন দেওয়ানের কাছে ভাসুর জয়নালের কু-প্রস্তাবের বিচার প্রার্থনা করে। তারা সুষ্ঠু বিচার না করে উল্টো মাজেদাকে অনৈতিক কাজের প্রস্তাব দেয়। এঘটনায় মাজেদা উপায়ন্তর না পেয়ে নিজে প্রতিবাদ করে। এতে তারা ক্ষিপ্ত হয়ে নারী লোভী ওই ৩ জন একত্রিত হয়ে পূনরায় মাজেদাকে বেধরক মারপিট করে শ্লীলতাহানি ঘটিয়ে জোরপূর্বক বাড়ি থেকে বের করে দিয়ে ঘরে তালা ঝুঁলিয়ে দেয়। মাজেদা বিষয়টি মোবাইল ফোনে আবারও তার স্বামীকে জানালে জিয়ারুল ঢাকা থেকে বাড়িতে ফিরে তার বড় ভাইয়ের কাছে এ বিষয়ে জানতে চাইলে তাকেও মারপিট করে বাড়ি থেকে বের করে দেয়। ফলে দীর্ঘ এক মাস থেকে মাজেদা তার স্বামী, সন্তান নিয়ে বাড়ি-ঘর ছাড়া হয়ে অন্যের বাড়িতে বসবাস করে আসছে।  মাজেদা আরও জানান, গত ২৪ অক্টোবর সুন্দরগঞ্জ থানায় একটি লিখিত এজাহার দাখিল করেও কোন সুবিচার পাইনি।  সংবাদ সম্মেলনে মাজেদার স্বামী জিয়ারুল ইসলাম, বোন রাশেদা ও ছেলে মাসুদ উপস্থিত ছিলেন।  এমতাবস্থায় প্রশাসনের উর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেন মাজেদা বেগম।

    বাংলাদেশ সময়: ১:৩২ অপরাহ্ণ | সোমবার, ০৮ নভেম্বর ২০২১

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ