• শিরোনাম

    ভাঙ্গুড়ায় নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বাড়ি ভাংচুর ও লুটপাট

    জামিল হোসেন পাবনা | বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২২ | পড়া হয়েছে 28 বার

    ভাঙ্গুড়ায় নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বাড়ি ভাংচুর ও লুটপাট

    ভাঙ্গুড়ায় নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বাড়ি ভাংচুর ও লুটপাট

    apps

    পাবনার ভাঙ্গুড়া উপজেলার অষ্টমনিষায় আদালতের নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে বাজারে উপর দীর্ঘ দিনের বসতি বাড়ি ভাংচুর ও লুটপাট করে সম্পত্তি জোরপূর্বক দখলের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে একই ইউনিয়নের ঝবঝবিয়া গ্রামের মৃত নছিমুদ্দিন মোল্লার ছেলে মো. ওয়ারেছ আলী ও তার ছেলে মো. তারেক হোসেনের বিরুদ্ধে। সোমবার (২৪’ জানুয়ারি) দুপুরের দিকে এ ঘটনায় ৯৯৯ নম্বরে কল করে থানা পুলিশকে জানান ভুক্তভুগী। ঘটনার দের ঘন্টা পরহলে সেখানে পুলিশ উপস্থিত হয়। সূত্রেমতে জানা গেছে, ভাঙ্গুড়া থানার অষ্টমনিষা মৌজার ৩৯১ খতিয়ানের ৮৫৪/৮৫৫/৩৫৪/৩৫৩/৩৫২নং দাগের ৬ শতাংশের পশ্চিমাংশের ৪ শতক,২১ শতাংশের পূর্বাংশের ০৩ শতাংশ মোট ৭ শতাংশ জমি নিয়ে দুই পক্ষের মধ্যে বিরোধ চলছে। ওই সম্পত্তির উপর দির্ঘদিন বসবাসকারি মো. হাবিবুর রহমান পাবনা অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেটের আদালতে নালিশী সম্পত্তি নিয়ে একটি মোকদ্দমা করলে গত ১৬ জানুয়ারি আদালত ওই সম্পত্তিতে কোনো প্রকার স্থাপনা নির্মাণ, আকার আকৃতি পরিবর্তন না করা ও মামলা নিষ্পত্তি না হওয়া পর্যন্ত উভয় পক্ষের মধ্যে স্থিতাঅবস্থা বজায় রাখার জন্য ভাঙ্গুড়া থানার অফিসার ইনচার্জকে আদেশ দেওয়া হয়। মো. হাবিবুর রহমানের ছেলে আরিফুল ইসলাম বলেন, সোমবার দুপুর সারে ১২ টার দিকে ঝবঝবিয়া গ্রামের মো. ওয়ারেছ আলী ও তার ছেলে তারেক হোসেন ৫ জন সন্ত্রাসী বাহিনি ও কিছু শ্রমিক দিয়ে আমাদের বসতিয় ইটের ঘর ভাংচুর ও লুটপাট করে এবং কিছু গাছ কেটে নিয়ে সেখানে তিনি একটি টিনের ঘড় নির্মাণ করেছে। ঘটনার সময় ৯৯৯ নম্বরে কল করে থানা পুলিশকে জানায়। কিন্তু পুলিশ উপস্থিত হওয়ার আগেই প্রতিপক্ষরা বাড়ি ভাংচুর ও লুট পাট করে। এ বিষয়ে জানতে চাইলে ওয়ারেছ আলীর ছেলে তারেক হোসেন বলেন, আমার সম্পিতি আমি দখল করব এতে আদালতের নিষেধাজ্ঞা আমার যায় আসে না। ভাঙ্গুড়া থানার অফিসার ইনচার্জ মুহাম্মদ ফয়সাল বিন আহসান জানান, খবর পেয়ে ঘটনাস্থলে পুলিশ পাঠানো হয়েছে। ঘটনার বিষয়ে লিখিত অভিযোগ পেয়েছি, তদন্তপূর্বক আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

    বাংলাদেশ সময়: ৪:৩৪ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ২৭ জানুয়ারি ২০২২

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ