• শিরোনাম

    প্রতীক বরাদ্দের পর নিজ গ্রাম নাসিরাবাদে শামছুজ্জামান খান মাসুমের বিশাল নির্বাচনী জনসমাবেশ অনুষ্ঠিত

    মোঃ নিজাম উদ্দিন নবীনগর ব্রাহ্মণবাড়িয়া প্রতিনিধি | সোমবার, ১৫ নভেম্বর ২০২১ | পড়া হয়েছে 161 বার

    প্রতীক বরাদ্দের পর নিজ গ্রাম নাসিরাবাদে শামছুজ্জামান খান মাসুমের বিশাল নির্বাচনী জনসমাবেশ অনুষ্ঠিত

    প্রতীক বরাদ্দের পর নিজ গ্রাম নাসিরাবাদে শামছুজ্জামান খান মাসুমের বিশাল নির্বাচনী জনসমাবেশ অনুষ্ঠিত

    apps

    ব্রাহ্মণবাড়িয়া জেলার নবীনগর উপজেলা শ্যামগ্রাম ইউনিয়নে আগামী ২৮ নভেম্বর তৃতীয় ধাপে ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী শামসুজ্জামান খান মাসুম গতকাল রবিবার ১০ নভেম্বর বিকেলে তার গ্রামের নাছিরাবাদ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে নাছিরাবাদের সর্বস্তরের জনগণের উপস্থিতিতে এক জনসমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সমাবেশে শামসুজ্জামান খান মাসুম বলেন,প্রিয় গ্রামবাসী আমি আপনাদের সামনে কি বক্তব্য দিবো সেটা আমার জানা নেই, তবে আপনাদের সামনে আমি অত্যন্ত আনন্দ নিয়ে উপস্থিত হয়েছি কারণ দল আমার মত একজন নগণ্য অধমের হাতে আপনাদের সেবা করার জন্য নৌকা প্রতীক তুলে দিয়েছে,আমাদের সকলের প্রিয় নেত্রী দেশ রত্ন শেখ হাসিনা সহ স্থানীয় এমপি এবাদুল করিম বুলবুল ও সাবেক এমপি ফয়জুর রহমান বাদল ও দলের অন্যান্য নেতৃত্বেস্থানীয় ব্যক্তিবর্গ। আমি সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করি ।আমি আপনাদেরই সন্তান।আপনারা আমাকে চিনেন এবং জানেন ।এই গ্রামেই আমার বেড়ে ওঠা আর আমার কবরও এই নাসিরাবাদ কবরস্থানেই হবে ইনশাল্লাহ।আমার গ্রামকে নিয়ে আমার অনেক স্বপ্ন আছে, সেটা মুখে না বলে কাজে প্রমাণ করতে চাই।আর এর জন্য আপনাদের সমর্থন ও দোয়ার দরকার। যদি কবির ভাষায় বলি-“আমার গ্রাম খানি ছবির মতন, মাটির তলায় এর ছাড়ানো রতন, আম গাছ জাম গাছ বাঁশঝাড় যেন মিলেমিশে আছে আত্মীয় হেন, পাড়ার সকল ছেলে মোরা ভাই ভাই একসাথে খেলি আর পাঠশালায় যাই” ঠিক এরকম একটি ইউনিয়ন আমি স্বপ্ন দেখি।আমাদের ইউনিয়ন হবে গর্ব করার মতো ইউনিয়ন।আমি চাই আমাদের ইউনিয়নকে মানুষ শ্রদ্ধা ভাবের স্মরণ করুক। কিন্তু যোগ্য নেতৃত্ব ছাড়া ভালো কিছু আশা করা যায় না।আমার বিশ্বাস আমরা সবাই কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে সামনে এগিয়ে যাবো, একজন লোকও ঘরে বসে থাকবে না।প্রত্যেকটা লোক একজন কর্মী হিসেবে কাজ করবে ইনশাল্লাহ।আমাদের কি ধরনের সক্ষমতা আছে সেটা বুঝানোর সুযোগ দিন।সার্বিক উন্নয়ন নিশ্চিত শুধু কয়টা রাস্তা বা কালভার্ট সংস্কারের মধ্যে হয়ে যায় না। একটি সমাজের উন্নয়ন শুধু এক সেক্টরের সংস্করনের মাধ্যমে হয় না।যেমন একটি তরকারিকে স্বাদ করতে হলে সকল মসলার সঠিক পরিমান লাগে ঠিক তেমনি হলো সমাজের সার্বিক উন্নয়ন। সেটা জানা থাকা লাগবে।দেখবেন অনেকে বলে আমি এই করছি সেই করছি সে জানে না আসলে সে কতটুকু করেছে। আমি দেশরত্ন শেখ হাসিনার স্বপ্ন “গ্রাম হবে শহর”সেটা লালন করি এবং আমার ভবিষ্যত পরিকল্পনা সে অনুসারে সাজিয়েছি।যে গ্রামে গোপাল চন্দ্র ভৌমিকের মত লোকের জন্ম হয়েছে সেই গ্রামে যোগ্য নেতৃত্ব তৈরি হবে সেটাই স্বাভাবিক। ২৮ তারিখের নির্বাচনে আশা করব একটি মানুষও আমাদের বাইরে যাবে না। মা-বাবা সন্তানের সাথে অভিমান করে কিন্তু কিন্তু বেইমানী করে না।আমি আপনাদেরই সন্তান।আপনারা আমার আশ্রয়স্থল।শ্যামগ্রাম ইউনিয়ন নিয়ে সামসুজ্জামান খান মাসুমের ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা গুলো তুলে ধরে তিনি বলেন আমি আপনাদের ভোটে নির্বাচিত হতে পারলে অসাম্প্রদায়িক চেতনায় সমৃদ্ধ শ্যামগ্রাম ইউনিয়ন গড়া; শিক্ষা ব্যবস্থা আধুনিকায়ন করা; সমাজে শান্তি-শৃঙ্খলা বজায় রাখা; নারীদের সামাজিক নিরাপত্তা নিশ্চিত করা; মাদকমুক্ত গঠনে কার্যকর ভূমিকা রাখা; শ্যামগ্রাম ইউনিয়ন কে ডিজিটালাইজড করা; স্বাস্থ্যসেবায় সর্বোচ্চ অগ্রাধিকার দেয়া; গুরুত্বপূর্ণ ও জরাজীর্ণ রাস্তাগুলো অগ্রাধিকার ভিত্তিতে সংস্কার করা; কাবিখা,টিআর,বিএফ এবং খয়রাতি সাহায্য প্রদানের স্বচ্ছতা বজায় রাখা; ইউনিয়ন কে সম্পূর্ণ দুর্নীতি ও সন্ত্রাস মুক্ত রাখা; জন্ম নিবন্ধন,চারিত্রিক,নাগরিকদের সনদ প্রদান পদ্ধতি সহজ করা; প্রবাসীদের সুবিধা-অসুবিধা বিশেষভাবে লক্ষ্য রাখা; ইউনিয়নের গুরুত্বপূর্ণ কাজে সকল শ্রেণী-পেশার মানুষকে সম্পৃক্ত করা; বয়স্ক ভাতা,বিধবা ভাতা, প্রতিবন্ধী ভাতা, ষান্মসিক ভাতা,গর্ভবতী ভাতা সহ সকল ধরনের সরকারি অনুদান সমূহ সঠিক নিয়মে বিতরণের ব্যবস্থা করা।এটা আমার স্বপ্ন আর এ স্বপ্নকে বাস্তবে রুপ দেওয়ার জন্য শ্যামগ্রাম ইউনিয়ন বাসীর কাছে আমার অনুরোধ আপনারা যদি ২৮ নভেম্বর আপনাদের মূল্যবান ভোট দিয়ে আমাকে জয়যুক্ত করেন তাহলেই স্বপ্নগুলো বাস্তবে পরিণত করতে পারবো ইনশাল্লাহ। জ্যোতি খানের সঞ্চালনায় উক্ত জনসমাবেশে সভাপতিত্ব করেন-বিশিষ্ট সমাজসেবক আস্কর আলী, বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মানিক নগর বাজার সেক্রেটারি ডাক্তার মনির খান, সাবেক ইউপি সদস্য আব্দুল মালেক,সাবেক ইউপি সদস্য আব্দুল কাদির, ইউপি সদস্য মেহেদী হাসান জালাল, জাহাঙ্গীর আলম খান, সালেহা বেগম, নাজির হোসেন, মোঃশাহপরান, মোঃপায়েল মুক্তার, সত্যজিৎ, অসিত কুমার, আলম ব্যাপারী, তাহের মিয়া, মোঃ ইউনুস, নিরু দাশ সহ আরো অনেকেই বক্তব্য রাখেন। বক্তারা বলেন যে কোনো মূল্যে আমাদের ছোট মাসুম টাকে কাঁদাবো না, এই কান্না আমরা সহিতে পারবো না।আমরা প্রত্যেক ভোটারের ঘরে ঘরে মাসুম সাজে ভোট চাইতে যাব।আমাদের গ্রামের অনেক আত্মীয়-স্বজন বিভিন্ন গ্রামে আসেন,আমরা যদি একটি আত্মীয়র বাড়ি থেকে ভোট আনতে পারি সেটাই হবে আমাদের আশীর্বাদ। আমাদের পার্শ্ববর্তী গ্রাম শাহবাজপুর, শ্রীঘর, সাহেবনগর আমরা একসাথে চলাফেরা করি, আমরা প্রত্যেকে মিলে সবার বাড়ি বাড়ি যাবো ।আমরা তো সবসময়ই দিয়ে এসেছি, এবার আমরা তাদের কাছে থেকে চাই তারা যেন আমাদেরকে একটি বারের মতো মাসুমকে নৌকার প্রতীকে ভোট দেন।

    বাংলাদেশ সময়: ৫:৪১ অপরাহ্ণ | সোমবার, ১৫ নভেম্বর ২০২১

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ