• শিরোনাম

    পাকিস্তানের উচিত ১৯২ জন যুদ্ধাপরাধীর বিচার করা,বললেন জাকের পার্টির চেয়ারম্যান

     মাহদী হাসান সিয়াম,স্টাফ রিপোর্টারঃ | সোমবার, ২০ ডিসেম্বর ২০২১ | পড়া হয়েছে 54 বার

    পাকিস্তানের উচিত ১৯২ জন যুদ্ধাপরাধীর বিচার করা,বললেন জাকের পার্টির চেয়ারম্যান

    পাকিস্তানের উচিত ১৯২ জন যুদ্ধাপরাধীর বিচার করা,বললেন জাকের পার্টির চেয়ারম্যান

    apps

    (১৮ ডিসেম্বর) শনিবার, বরিশাল শহরের হেমায়েত উদ্দিন ঈদগাহ মাঠে জাকের পার্টির বিভাগীয় সমাবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে। পাক ভারত সম্পর্ক স্বাভাবিক হলে উপমহাদেশের কল্যাণ হবে জাকের পার্টি চেয়ারম্যান মোস্তফা আমীর ফয়সল বলেছেন, উপমহাদেশের বৃহত্তর স্বার্থে পাকিস্তানের উচিৎ ১৯২ জন যুদ্ধাপরাধীর বিচার করা। আপনাদের দেশেই তাদের বিচার করেন। আপনাদের ভারতের সাথে সম্পর্ক স্বাভাবিক করা উচিৎ। হঠকারী কর্মকান্ড থেকে সরে আসা উচিত। যাতে করে এ উপমহাদেশে কোন ধরনের ধ্বংসাত্মক ঘটনা ঘটনা না ঘটে। পাক ভারত সম্পর্ক স্বাভাবিক হলে উপমহাদেশেরও কল্যাণ হবে। বাংলাদেশেরও কল্যাণ হবে। শনিবার বরিশাল শহরের হেমায়েত উদ্দিন ঈদগাহ ময়দানে বরিশাল বিভাগীয় জাকের পার্টির ইসলামী সমাবেশে প্রধান অতিথির বক্তৃতা কালে তিনি এসব কথা বলেন। বরিশাল বিভাগীয় জাকের পার্টির সভাপতি মিজানুর রহমান বাচ্চুর সভাপতিত্বে সমাবেশে অন্যান্যের মধ্যে বক্তৃতা করেন জাকের পার্টির ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব শামীম হায়দার। মোস্তফা আমীর ফয়সল বলেন, দেশ এখন এগিয়ে যাচ্ছে। নৌকা এখন এগিয়ে যাচ্ছে। আমরা গোলাপ ফুল নিয়ে উপরে বসে আছি। তরী যেখানে ঠেকবে, সেখানেই গোলাপের বাগান তৈরি করা হবে। তিনি আরো বলেন, ওহাবীদের পক্ষ থেকে পীর তৈরী করে জাকের পার্টির বিকল্প বানানোর ষড়যন্ত্র হয়েছে। আবার অন্য পন্থীদের মধ্য থেকে পীর বানানোর অপচেষ্টা হয়েছে, জাকের পার্টির বিকল্প বানানোর জন্য। কিন্তু পারে নি। মনে রাখতে হবে, কোন দিনই জাকের পার্টির বিকল্প বানানো যাবে না। জাকের পার্টিকে কেউ ধ্বংস করতে পারবে না ইনশাআল্লাহ। জাকের পার্টি চেয়ারম্যান বলেন, ইসলাম লেবাস সর্বস্ব নয়। ইসলামের নামে যারা জঘন্য কর্মকাণ্ড করে, ইসলামের প্রতি মানুষের ভালোবাসা,শ্রদ্ধা নষ্ট করে, তারা প্রকৃত অর্থে ইসলামের দুষমন। তিনি বলেন, আমরা সত্যকে সত্য বলি। মিথ্যাকে মিথ্যা বলি। জাকের পার্টি চেয়ারম্যান বলেন, রাজনীতি যখন শয়তানের হাতে পড়ে, তখন রাজনীতি আর রাজনীতি থাকে না। আর রাজনীতি যখন পবিত্র মানুষের হাতে পড়ে, তখন রহমতের দরজা খুলে যায়, স্নিগ্ধ শান্তি ও কল্যাণের বাতাস প্রবাহিত হতে থাকে। ‘৭১ এ শ্বাশত ইসলামকে হীন স্বার্থে অপপ্রয়োগ করে যারা কালিমা লেপন করেছে, তাদের উদ্দেশ্যে মোস্তফা আমীর ফয়সল বলেন, অন্যায় ভালো কিছু দেয় না। ভালো কিছু পেতে হলে শান্তির পথে যেতে হবে। শান্তির পথে চলতে হবে। কারণ ইসলাম শান্তির ধর্ম। জাকের পার্টি চেয়ারম্যান বলেন, আমরা যদি ক্ষমতা চাইতাম তাহলে ক্ষমতায় যাওয়ার রাজনীতি আগেই করতাম । কিন্তু কি করতে হতো তখন? আমাদের এখনকার যে চলমান রাজনৈতিক চর্চা, যে চর্চায় মানুষের মাথার বারি দেয়া হয়, গুলি করা হয়, তা তো আমরা করবো না। এক শ্রেণীর রাজনীতিবিদের মাধ্যমে এখন দেশে যে রাজনৈতিক চর্চ্চা চলছে, এ চর্চ্চা তো শয়তানের চর্চ্চা। আমরা তো সেই চর্চ্চা করতে পারি না। মোস্তফা আমীর ফয়সল আরো বলেন, বাংলাদেশের মানুষকে এক সময় জাকের পার্টির পতাকার নিচে আসতে হবে। বর্তমানে দেশে চলমান উন্নয়নের ধারা বজায় থাকুক। বিশ্বে অর্থনৈতিক সমস্যা থাকলেও বাংলাদেশে উন্নয়ন চলমান রয়েছে। জাকের পার্টি চেয়ারম্যান সমাবেশে সমবেতদের উদ্যেশ্যে বলেন, দেশের বৃহত্তর স্বার্থে যদি আমি কখনও লং মার্চের ডাক দেই তাহলে আপনারা কি আসবেন? আপনারা কি প্রস্তুত আছেন? জনতা দু’হাত তুলে সমস্বরে সম্মতি জানিয়ে হর্ষধ্বনি করেন। তিনি আরো বলেন, আপনারা প্রস্তুত থাকেন। অপেক্ষায় থাকেন,আপনাদের পার্টির চেয়ারম্যান কি নির্দেশ দেয় আপনাদের? সময়মত আমার যা করার আমি তাই করবো। মোস্তফা আমীর ফয়সল বলেন, আমরা নির্বাচন সে ভাবে করবো – ভোট দিলে দিবে, না দিলে নাই। আমরা মারামারি, কাটাকাটির ভিতর যেতে চাই না। আমাদের আঘাত করলে কি প্রত্যাঘাত করার ক্ষমতা নাই? কিন্তু বিগত ৩২ বছরে আমি আপনাদের এ ধরনের কোন নির্দেশনা দেই নাই। জাকের পার্টি চেয়ারম্যান বলেন, আমরা ধৈর্য্যশীল দল। আমরা ধৈর্য্য ধারণ করে থাকবো। আমরা আল্লাহর রহমতের দিকে তাকিয়ে আছি। দেশের বৃহত্তর স্বার্থে আমরা ধৈর্য্য ধরে থাকি। এটাই জাকের পার্টি। তিনি বলেন,বিজয়ের এই মাসে আমি জাকের পার্টির বিজয় ঘোষণা করে গেলাম। ইনশাআল্লাহ জাকের পার্টির বিজয় হবেই।

    বাংলাদেশ সময়: ৫:৪৯ অপরাহ্ণ | সোমবার, ২০ ডিসেম্বর ২০২১

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ