• শিরোনাম

    পবায় উপজেলা পর্যায়ে দক্ষতা উন্নয়ন বিষয়ক ওরিয়েন্টেশন ওয়ার্কশপ 

    নিজস্ব প্রতিবেদক: | বুধবার, ২৩ মার্চ ২০২২ | পড়া হয়েছে 44 বার

    পবায় উপজেলা পর্যায়ে দক্ষতা উন্নয়ন বিষয়ক ওরিয়েন্টেশন ওয়ার্কশপ 

    পবায় উপজেলা পর্যায়ে দক্ষতা উন্নয়ন বিষয়ক ওরিয়েন্টেশন ওয়ার্কশপ 

    apps
    পবায় উপজেলা পর্যায়ে দক্ষতা উন্নয়ন বিষয়ক ওরিয়েন্টেশন ওয়ার্কশপ অনুষ্ঠিত হয়েছে।
    বুধবার (২৩ মার্চ) বেলা ১১টায় উপজেলা প্রশাসন এর আয়োজনে উপজেলা পরিষদ মিলনায়তনে দক্ষতা উন্নয়ন বিষয়ক ওরিয়েন্টেশন ওয়ার্কশপ  অনুষ্ঠিত হয়।
    দারিদ্র বিমোচন ও টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিত করার লক্ষ্যে অর্থ বিভাগ, অর্থ মন্ত্রণালয়ের স্কিলস ফর এমপ্লয়মেন্ট ইনভেস্টমেন্ট প্রোগ্রাম-সেইপ-এর উদ্যোগে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হচ্ছে। এই কর্মসূচির আওতায় ২০২৪ সালের মধ্যে সাড়ে আট লক্ষ জনবলকে দক্ষতা উন্নয়ন প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে  তাদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা হবে।
    উক্ত কর্মশালায় উপজেলা নির্বাহী অফিসার লসমী চাকমা এর সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান বীর মুক্তিযোদ্ধা ইয়াসিন আলী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান মোসাঃ আরজিয়া বেগম ও মোঃ ওয়াজেদ আলী খাঁন। স্বাগত বক্তব্য রাখেন অর্থ মন্ত্রণালয়ের স্কিলস ফর এমপ্লয়মেন্ট ইনভেস্টমেন্ট প্রোগ্রাম সেইপের বিহেভিয়ার চেঞ্জ কমিউনিকেশন এক্সপার্ট একেএম মনজুরুল হক এবং সঞ্চালনায় ছিলেন মো. জাহাঙ্গীর আলম।
    এ সময় আরো উপস্থিত ছিলেন বিআরডিবি কর্মকর্তা মোসাঃ শামসুন্নাহার, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা এমএন জহুরুল ইসলাম, মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা শিমুল বিল্লাহ সুলতানা, শাহমখদুম পলিটেকনিক ইনস্টিটিউট এর অধ্যক্ষ মো. আঃ হান্নান চৌধুরী, ওয়ার্ল্ড ভিশন বাংলাদেশের সিনিয়র ম্যানেজার সেবাস্টিয়ান পিউরিফিকেশন, নওহাটা সরকারি উচ্চ বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ওমর আলী, দামকুড়া ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম, ৮ নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর  হাবিবুর রহমান হাবিব, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর রেশভানু বেগম। এ সময় উপস্থিত বক্তারা বলেন, অর্থ মন্ত্রণালয়ের অর্থ বিভাগের বাস্তবায়নে সেইপ-এর অর্থায়নে কারিগরি প্রশিক্ষণ প্রদানের মাধ্যমে দক্ষ জনশক্তি তৈরি করতে হবে। এই কারিগরি প্রশিক্ষণে এতিম, প্রতিবন্ধী জনগোষ্ঠী, ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠী, বেকার যুবক, মহিলা, দরিদ্র সুবিধাবঞ্চিত ও অনগ্রসর জনগোষ্ঠীর অগ্রাধিকার পাবে। সম্পূর্ণ সরকারি খরচে এ প্রশিক্ষণ দেওয়া হবে এবং প্রশিক্ষণার্থীদের মধ্যে ৬০ শতাংশের চাকরির সুযোগ রাখা হয়েছে। এছাড়াও কর্মক্ষেত্রে নারীর অংশগ্রহণ বৃদ্ধি করার জন্য প্রশিক্ষণ কার্যক্রমে ৩০ শতাংশ নারীর অংশগ্রহণ নিশ্চিত করা হবে। প্রশিক্ষণ চলাকালে এসব জনগোষ্ঠীকে প্রশিক্ষণ ভাতার পাশাপাশি বিশেষ বৃত্তি দেওয়া হবে। এছাড়াও তৈরি পোশাক ও টেক্সটাইল, তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি, নির্মাণ, লাইট ইঞ্জিনিয়ারিং, চামড়া ও পাদুকা, জাহাজ নির্মাণ, হেলথকেয়ার, এগ্রো ফুড প্রসেসিং, ট্যুরিজম এন্ড হসপিটালিটি, মোটর ড্রাইভিং এবং বেসিক রক্ষণাবেক্ষণ বিষয়ক প্রশিক্ষণ প্রদান করা হবে বলে জানান তাঁরা। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন ইউনিয়নের পরিষদের চেয়ারম্যান, এনজিও প্রতিনিধি, সাংবাদিক ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের প্রধান শিক্ষক এবং উপজেলা প্রশাসনিক বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তা বৃন্দ।

    বাংলাদেশ সময়: ৮:০৩ অপরাহ্ণ | বুধবার, ২৩ মার্চ ২০২২

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ