• শিরোনাম

    নারায়ণগঞ্জের বন্দরে গণধর্ষণ মামলার আসামীকে পিটিয়ে হত্যা,  গ্রেফতার-২, ঢাকা- চট্রগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ

    এস,এম মনির হোসেন (সোনারগাঁও,নারায়ণগঞ্জ) : | বৃহস্পতিবার, ২৪ মার্চ ২০২২ | পড়া হয়েছে 52 বার

    নারায়ণগঞ্জের বন্দরে গণধর্ষণ মামলার আসামীকে পিটিয়ে হত্যা,  গ্রেফতার-২, ঢাকা- চট্রগ্রাম মহাসড়ক অবরোধ
    apps
     নারায়ণগঞ্জের বন্দরে গণধর্ষণ মামলার আসামীকে পিটিয়ে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে বাদী পরিবারের বিরুদ্ধে। এ হত্যাকান্ডের ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ ২৩ মার্চ বুধবার সকালে  দুই জনকে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃতরা হলো শহিদুল ইসলাম (২৯) ও সাইফুল (১৭)। বিচারের আওতাভুক্ত  হত্যাকান্ডের ঘটনায় উত্তেজিত এলাকাবাসী হত্যাকারীদের দৃষ্টান্ত মূলক শাস্তির দাবি জানিয়ে বুধবার  দুপুরে ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কের লাঙ্গলবন্দ বাসষ্ট্যান্ড এলাকায় অবরোধ করে বিক্ষোভ মিছিল করে। এতে করে  মহাসড়কের দুই পাশে ১২ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। এ ঘটনার সংবাদ পেয়ে বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ দীপক চন্দ্র সাহা দ্রুত ঘটনাস্থলে এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে।
    তথ্য সূত্রে জানা গেছে, গত ১৮ মার্চ শুক্রবার বন্দর উপজেলা মুছাপুর ইউপির চিড়ইপাড়া কলোনীর মৃত  শাহাজউদ্দিনের  ছেলে মো. রকি ও তার চাচাতো ভাই শুকুর আলীর  ছেলে আলমগীর মিলে একই এলাকার এক গার্মেন্টস কর্মীকে  জোর পূর্বক গণধর্ষণ করে। এ ঘটনায় ধর্ষিতার মা বাদী হয়ে ধর্ষক  রকি ও আলমগীরকে আসামি করে বন্দর থানায় নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইনে মামলা দায়ের করেন। থানায় মামলা দায়েরের পর মামলার  আসামি রকি ও আলমগীর পালিয়ে গেলে তাদের অবস্থানের খবর পেয়ে বাদীর পরিবারের লোকজন গত মঙ্গলবার বিকালে চিটাংরোড থেকে গনধর্ষণ মামলার দুই আসামিকে ধরে এনে গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করা হয়। ওই সময় পুলিশ আহত রকিকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। পরে বৃহস্পতিবার সকালে  চিকিৎসাধীন অবস্থায় গণধর্ষণ মামলার আসামী রকির  মৃত হয় । হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায়  মৃত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে হত্যার বিচারের দাবীতে দুপুরে ঢাকা-চট্রগ্রাম মহাসড়কের লাঙ্গলবন্দ এলাকায় অবরোধ করে রাখে এলাকাবাসী। এতে  মহাসড়কের দুই পাশে ১২ কিলোমিটার এলাকা জুড়ে তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। পরে বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহা ঘটনাস্থালে ছুটে এসে রকি হত্যাকারিদের বিচারের আওতায় আনার  আশ্বাস্ত করলে অবরোধ তুলে নেয় এলাকাবাসী।
    বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) দীপক চন্দ্র সাহা জানান,  গণধর্ষণ মামলার দুই আসামি রকি ও আলমগীরকে বাদীর পরিবারের লোকজন  গণপিটুনি দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করে। ওই সময় পুলিশ আসামি রকিকে গুরুত্বর আহত অবস্থায় উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। বুধবার সকালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রকির মৃত্যু হয়। এ ঘটনায় ধর্ষিতার দুই ভাই মো. শহিদুল ইসলাম, সাইফুল ইসলাম  নামের দুইজনকে  আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানায় হত্যা মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে।

    বাংলাদেশ সময়: ১২:১৯ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ২৪ মার্চ ২০২২

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ