• শিরোনাম

    নাজিরপুরে দুই ইউপিতে নির্বাচন শেষ মুহূর্তের প্রচারণায় সরগরম নির্বাচনী মাঠ

    শফিকুল ইসলাম , বিশেষ প্রতিনিধিঃ | রবিবার, ১২ জুন ২০২২ | পড়া হয়েছে 38 বার

    নাজিরপুরে দুই ইউপিতে নির্বাচন শেষ মুহূর্তের প্রচারণায় সরগরম নির্বাচনী মাঠ
    apps

    নির্বাচনের বাকি দুই দিন।সোমবার মধ্যরাত থেকে আর কোনো প্রচার-প্রচারণা হবে না। তাই শেষ মুহূর্তে সরগরম নির্বাচনী মাঠ। প্রচার-প্রচারণায় মুখরিত এলাকা। নির্ঘুম রাত কাটছে প্রার্থীদের। ভোটের আশায় দ্বারে দ্বারে ঘুরছেন তারা। দিচ্ছেন উন্নয়ন প্রতিশ্রুতি, চাইছেন ভোট।বুধবার (১৫ ই জুন) প্রথম ইলেক্ট্রনিক ভোটিং মেশিনের (ইভিএম) মাধ্যমে ভোট দেবে এই দুই ইউনিয়নবাসী। আগামী ১৫ ই জুন নবম ধাপে অনুষ্ঠিত ইউপি নির্বাচনকে কেন্দ্র করে পিরোজপুরের নাজিরপুর উপজেলার ৩ নং দেউলবাড়ী দোবড়া ও ৯ নং কলারদোয়ানিয়া ইউপি নির্বাচনের ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হবে। এ নির্বাচনে দেউলবাড়ি দোবরা ইউনিয়ন ও কলারদোয়ানিয়া ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে লড়াই করছেন নবীন ও প্রবীনসহ মোট ১১ জন প্রার্থী। নির্বাচনকে কেন্দ্র করে শেষ মুহুর্তে জমে উঠেছে ভোটের লড়াই এবং সেই সাথে হিসাব-নিকাশ। প্রার্থীরা চষে বেড়াচ্ছেন ভোটারদের বাড়ি বাড়ি। দিন রাত চলছে প্রচার -প্রচরনা, উঠান বৈঠক আর সভা। ভোটাদের মন জয় করতে প্রার্থীরা দিয়ে যাচ্ছেন নানা প্রতিশ্রুতি। পছন্দের প্রার্থীকে ভোট দিতে ভোটের অপেক্ষার প্রহর গুনছেন ভোটাররা। প্রার্থীরা ভোর থেকে গভীর রাত পর্যন্ত তারা ঘুরে বেড়াচ্ছেন ভোটাদের দ্বারে দ্বারে। স্থানীয় এই নির্বাচন সামনে রেখে আওয়ামী লীগ, স্বতন্ত্র, ও ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ এর আমীর পীর সাহেব চরমোনাই দুইটি দলের ও আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী নিয়ে স্থানীয় নেতার্কমীরা বিভক্ত হয়ে পড়েছেন। ইউপি নির্বাচনে আওয়ামী লীগের মনোনয়ন বঞ্চিত ৯ জন বিদ্রোহী চেয়ারম্যান প্রার্থী নিয়ে টেনশনে রয়েছে আওয়ামী লীগ। নিজ দলের শক্ত বিদ্রোহী প্রার্থী থাকায় ভোটের মাঠে নৌকার প্রার্থী বিব্রতবোধ করছেন। ভোটের মাঠে স্বদলীয় নেতা কর্মীদের মধ্যে প্রতিদ্বন্দি থাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। রাজনীতির এই নতুন মেরুকরণে আওয়ামী লীগ ই আওয়ামী লীগের প্রতিদ্বন্দি হয়ে উঠেছে, নির্বাচনে আওয়ামী লীগ ও আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী কোন্দল র্পদার অন্তরালে থাকলওে ১৫ জুন এই নির্বাচনে তা এখন প্রকাশ্যে রূপ নিতে যাচ্ছে। বিদ্রোহীরাই তাদের মূল প্রার্থীর পথের কাঁটা হয়ে দাঁড়িয়েছে বলে আশঙ্কা বিশ্লেষকদের। তারা বলছেন,বিদ্রোহী প্রার্থীদের কারণে দলের প্রার্থী চরম ঝুঁকিতে পড়তে পারেন। তবে নির্বাচনকে ঘিরে স্বতন্ত্র প্রার্থীদের নেতাকর্মীদের মধ্যেই বেশি চাঙাভাব বিরাজ করছে। অপরদিকে প্রধান বিদ্রোহী শক্ত অবস্থান গ্রহণ করায় বিষয়টি নিয়ে র্সবত্রই আলোচনা চলছে। বিদ্রোহী প্রার্থী থাকায় নির্বাচনি আমেজ যেমন বাড়ছে, রয়েছে সহিংসতার আশঙ্কাও। নির্বাচনের দিন যত ঘনিয়ে আসছে ভোটার ও প্রার্থীদের মধ্যে উৎসাহ উদ্দীপনা বাড়ছে। গ্রামের চায়ের দোকান ও হাটবাজারে চলছে নির্বাচনী আলোচনা। দেউলবাড়ি দোবড়া ইউনিয়নের আওয়ামীলীগের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী মাষ্টার ওয়ালিউল্লাহ্ (নৌকা), বিদ্রোহী প্রার্থী হলেন- রফিকুল আলাম বাবুল (আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র) (চশমা), গাজী মিজানুর রহমান (আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র) (আনারশ)। এছাড়া সাধারণ সদস্য ৩৪ জন, সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে প্রতিদন্ধিতা করছেন ১০জন। মোট ভোটার সংখ্যা ১৬হাজার ৬ শত ৩৩ ভোট। কলারদোয়ানিয়া ইউনিয়নের আওয়ামীলীগের মনোনীত চেয়ারম্যান প্রার্থী মোঃ কবির বাহাদুর (নৌকা), বিদ্রোহী প্রার্থী হলেন- হাসানাত ডালিম (স্বতন্ত্র) (আনারশ), নাজমুল হুদা স্বপন (স্বতন্ত্র) (অটোরিক্সা), শাহ্আলম (আওয়ামীলীগের বিদ্রোহী স্বতন্ত্র) (চশমা), আরিফুল হাসান (স্বতন্ত্র) (টেলিফোন), বরকাতুল্লাহ্ তালুকদার (স্বতন্ত্র), (ঘোড়া), সাইদুল ইসলাম জান্টু (স্বতন্ত্র) (মটরসাইকেল), আবুল কালাম পীর সাহেব চরমোনাই মনোনিত (পাতপাখা)। এছাড়া সাধারণ সদস্য পদে ৩৩ জন, সংরক্ষিত মহিলা সদস্য পদে প্রতিন্ধন্ধিতা করছেন ১০। মোট ভোটার সংখ্যা ১৬হাজার ৩ শত ভোট। ৯ নং কলারদোয়ানিয়া ইউনিয়নের বাজার চায়ের দোকানে বিকালে কথা হয় মো.ফোরকান এর সাথে তিনি বলেন, ভোটারদের মধ্যে আনন্দ -উল্লাস থাকলেও সবার মধ্যে আতংক কাজ করছে। ভোট কেন্দ্রে গিয়ে তারা ভোট দিতে পারবেন কি না, নির্বাচন সুষ্ট হবে কি না? ৯ নং কলারদোয়ানিয়া ইউনিয়নের স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক চেয়ারম্যান হাসানাত ডালিম জানান, প্রতিনিয়ত সাধারন জনগনের সঙ্গে গনসংযোগ করে আসছি। বিগত ৫ বছর যেভাবে আমি আমার ইউনিয়ন পরিচালনা করে আসছি তাতে আমার বিশ্বাস সাধারণ জনগন দল,মত নির্বিশেষে বিপুল ভোটে আমাকে বিজয়ী করবে। আমি বিগত দিনে ইউনিয়নের যে উন্নয়ন করেছি এবং যা বাকী আছে এবারে চেয়ারম্যান নির্বাচিত হতে পারলে অসমাপ্ত ইউনিয়নের উন্নয়নমুলক কাজ গুলো সমাপ্ত করব। ৩ নং দেউলবাড়ী দোবড়া ইউনিয়নের বর্তমান চেয়ারম্যান মাস্টার ওয়ালিউল্লাহ্ (আওয়ামীলীগের মনোনিত নৌকা) প্রার্থী বলেন,আমি বিগতদিনে সুনামের সহিত ইউনিয়নকে যে ভাবে পরিচালনা করে আসছি আমার দৃড় বিশ্বাস জনগন এবারেও আমাকে বিপুল ভোটে বিজয়ী করবেন। এবারে আবারও চেয়ারম্যান নির্বাচিত হতে পারলে আধুনিক ইউনিয়ন গড়ার লক্ষে আমার চিন্তা ভাবনা আছে। উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ও রিটার্নিং অফিসার এবিএম ছিদ্দিক বলেন, আমরা চাই সুষ্ট নির্বাচন উপহার দিতে। প্রশাসনসহ আমাদের যা কিছু করার দরকার আমরা তাই করবো নির্বাচন সুষ্ট করার জন্য।

    বাংলাদেশ সময়: ১১:২৪ অপরাহ্ণ | রবিবার, ১২ জুন ২০২২

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ