• শিরোনাম

    নরসিংদীর জেলা প্রশাসকের নির্দেশে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের পর প্রাণ ফিরছে ব্রহ্মপুত্র নদে

    অনলাইন ডেস্ক | রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ | পড়া হয়েছে 143 বার

    নরসিংদীর জেলা প্রশাসকের নির্দেশে অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদের পর প্রাণ ফিরছে ব্রহ্মপুত্র নদে
    apps

    শান্ত বণিক, বিশেষ প্রতিনিধি: নরসিংদী জেলা প্রশাসন ব্রহ্মপুত্র নদ ও তার তীরবর্তী অবৈধ স্থাপনা উচ্ছেদ করায় প্রাণ ফিরে পেতে যাচ্ছে মাধবদী এলাকার ব্রহ্মপুত্র নদ। জেলা প্রশাসক ও বিজ্ঞ জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন এর নির্দেশনা অনুযায়ী ২০১৯ সালের ২৬ ডিসেম্বর থেকে ধাপে ধাপে দশটি অভিযান পরিচালনা করে মাধবদী এলাকায় ব্রক্ষপুত্র নদী প্রায় ৫ কিলোমিটার এলাকা অবৈধ দখলে ছিল যা, পর্যায়ক্রমে উচ্ছেদ করা হয়। এর মধ্যে মাধবদী বাজার সংলগ্ন নদীর দুই তীরে ৭০০ মিটার জুড়ে সবচেয়ে বেশি ভবন গড়ে উঠেছিল। মাধবদীতে মোট ১৫৭ জন অবৈধ ভবন মালিকদের দখলে থাকা ২৫৬টি ভবন ১তলা থেকে ১৫ তলা পর্যন্ত অভিযান পরিচালনা করে উচ্ছেদ করা হয়।

    মাধবদী একটি শিল্প নগরী সমৃদ্ধ এলাকা। এখানে প্রায় ৪ লক্ষ লোকের বসবাস। সেই সুবাদে এখানে গড়ে উঠেছে ৫০ টিরও অধিক ব্যাংক ও আর্থিক প্রতিষ্ঠান। সেই সুযোগ কাজে লাগিয়ে কিছু অসাধু ভবন মালিক স্থানীয় নেতাদের যোগসাজসে নদীকে নাল জমিতে শ্রেণীভূক্ত করে নদীর দু’পাড়ে গড়ে তুলেছে বহুতল ভবন। যার ফলে সময়ের ব্যবধানে মাধবদী বাজারের বুক চিরে বয়ে যাওয়া ব্রহ্মপুত্র নদীর চিত্র পাল্টে গিয়ে রূপ নিয়েছে সরু খালে। পানি নিষ্কাশনের কোন ব্যবস্থা ছিল না। যা ফলে একটু বৃষ্টিতেই মাধবদী শহরের রাস্তা-ঘাট, বাড়িতে জমে থাকতো হাটু পানি। সদর সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. শাহ আলম মিয়ার নেতৃত্বে উচ্ছেদ অভিযান চালিয়ে তা উদ্ধার করা হয়েছে।

    এ ব্যাপারে মাধবদী এলাকার বৃদ্ধ আনোয়ার হোসেন আফসোস করে বলেন, এই নদীতে আমরা এক সময় মাছ ধরেছি, সাঁতার কেটেছি। এই নদী দিয়ে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে নৌকা আসতো, নৌকাই ছিল চলাচলের একমাত্র যানবাহন। তখন এই নদী ছিল মাধবদী বাজারের প্রাণ। সেই নদীকে বাঁচাতে জেলা প্রশাসন এই মহতি উদ্যোগকে সাধুবাদ জানাই।

    এমন উদ্যোগের ফলে একদিকে যেমন বাড়ছে নদীর প্রশস্ততা অন্যদিকে ফুটে উঠছে নদীর দুই তীরে নির্মিত বহুতল ভবন গুলো নান্দনিক সৌন্দর্য। সবার স্বপ্ন নতুন করে খননের ফলে ব্রক্ষপুত্র আবারো আসবে জোয়ারের পানি।

    মাধবদী এলাকার আব্দুর রহিম মিয়া বলেন, বর্তমান সরকারের কারণে আবারো নদীতে আগের মতো পানি টলমল করবে, নৌকা চলবে, শহরের মানুষ নদীর বিশুদ্ধ বাতাস পাবে। এজন্য এই কাজে জড়িত সকলকে ধন্যবাদ জানাই।

    এ বিষয়ে জানতে চাইলে সদরের সহকারী কমিশনার ভূমি ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মো: শাহ্ আলম মিয়া জানান, সরকারি সম্পদ রক্ষা এবং সংরক্ষণে বদ্ধপরিকর জেলা প্রশাসন নরসিংদী। এরই ধারাবাহিকতায় জেলা প্রশাসক ও জেলা ম্যাজিস্ট্রেট সৈয়দা ফারহানা কাউনাইন স্যারের নির্দেশনায় সদর উপজেলার বিভিন্ন প্রান্তে গত এক মাস অভিযান পরিচালনা করে প্রায় ১১ একর খাস ও ভিপি সম্পত্তি যার বাজার মূল্য প্রায় ৫৫ কোটি টাকা বেদখলমুক্ত করা হয়েছে।

    বাংলাদেশ সময়: ৪:৪০ অপরাহ্ণ | রবিবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    পরম শ্রদ্ধেয় বাবার স্মরণে

    ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০

    আজ বিজয়া দশমী

    ২৬ অক্টোবর ২০২০

    আর্কাইভ