• শিরোনাম

    নরসিংদীতে ২২টি ইউনিয়ন নির্বাচন ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার মধ্যদিয়ে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হল

    স্টাফ রিপোর্টার | সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১ | পড়া হয়েছে 36 বার

    নরসিংদীতে ২২টি ইউনিয়ন নির্বাচন ধাওয়া পাল্টা ধাওয়ার মধ্যদিয়ে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হল
    apps

    নরসিংদীতে ইউনিয়ন পরিষদ (ইউপি) নির্বাচনে হামলা, পাল্টাপাল্টি ধাওয়া, ককটেল বিস্ফোরণ ও সংঘর্ষে শতাধিক ব্যক্তি আহত হয়েছেন। এর মধ্যে ছররা গুলিতে বিদ্ধ হয়েছেন অন্তত ২৫ জন। আজ রোববার সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত নরসিংদী সদর উপজেলার ছয়টি ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ চলাকালে এসব ঘটনা ঘটে। আহত ব্যক্তিদের নরসিংদী সদর হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হয়। নরসিংদী সদর হাসপাতালের জরুরি বিভাগের কর্তব্যরত চিকিৎসক মো. আবদুল বাকী বলেন, ‘নির্বাচনী সহিংসতার ঘটনায় গুলিবিদ্ধ অন্তত ২৫ জনকে আমরা চিকিৎসা দিয়েছি। তাঁদের মধ্যে তিনজনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। এ ছাড়া আহত ৪৯ জনকে চিকিৎসা দেওয়া হয়। পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, নরসিংদী সদর উপজেলার করিমপুর,নজরপুর,পাছদোনা, কাঠালীয়া,চিনিশপুর ও আমদিয়া ইউনিয়নে এসব সহিংসতার ঘটনা ঘটে। করিমপুর ইউপির শ্রীনগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে স্বতন্ত্র প্রার্থী গোলাম কিবরিয়াকে অবরুদ্ধ করেন নৌকার প্রার্থী মুমিনুর রহমানের সমর্থকেরা। এরই জের ধরে আজ দুপুর ১২টার দিকে নৌকার প্রার্থী মুমিনুর রহমান করিমপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে গেলে তাঁকে অবরুদ্ধ করেন স্বতন্ত্র প্রার্থীর সমর্থকেরা। এ ঘটনায় দুই পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ, পাল্টাপাল্টি ধাওয়া শুরু হলে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে পুলিশ ছররা গুলি করে। এতে ৮-১০ জন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। রোববার দুপুর সোয়া ১২টার দিকে চিনিশপুর ইউপির চিনিশপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে সংঘর্ষ ও ককটেল বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এ সময় পুলিশের সহকারী উপপরিদর্শক (এএসআই) মো. সাঈদ আনোয়ার, সদস্য পদপ্রার্থী সায়েম ভূঁইয়াসহ কয়েকজন আহত হন। পরে কেন্দ্র থেকে চারটি তাজা ককটেল উদ্ধার করা হয়। নজরপুর ও আমদিয়া ইউপিতে বিক্ষিপ্তভাবে ককটেল বিস্ফোরণ, হামলা, পাল্টাপাল্টি ধাওয়ার ঘটনা ঘটে। চারটি ইউপিতে নির্বাচনী সহিংসতায় আহত ব্যক্তির সংখ্যা ১০০ ছাড়িয়েছে। এর মধ্যে ছররা গুলিতে বিদ্ধ হয়েছেন অন্তত ২৫ জন। নির্বাচনী সহিংসতার ঘটনায় আমদিয়া ইউনিয়নের স্বতন্ত্র চেয়ারম্যান প্রার্থী নাজিম উদ্দিন ভূঁইয়া, কাঁঠালিয়া ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী মো. জহিরুল ইসলাম ও করিমপুর ইউনিয়নে স্বতন্ত্র প্রার্থী গোলাম কিবরিয়া সাংবাদিকদের ডেকে তাঁরা নির্বাচন বর্জনের ঘোষণা দিয়েছেন। এ বিষয়ে নরসিংদীর সিনিয়র নির্বাচন কর্মকর্তা মো. মেছবাহ উদ্দিন বলেন, ঝুঁকি এড়াতে সব কেন্দ্রে ভোটের দিন সকালে ব্যালট পৌঁছানো হয়। ভোটাররা যাতে নির্বিঘ্নে তাঁদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারেন, সে জন্য প্রতিটি ভোটকেন্দ্রে পাঁচ স্তরের নিরাপত্তাবলয় রাখা হয়েছিল। কয়েকটি ইউপিতে বিচ্ছিন্ন কিছু ঘটনা ছাড়া তৃতীয় ধাপের এই নির্বাচন সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ হয়েছে। তৃতীয় ধাপে নরসিংদীর দুই উপজেলার ২২টি ইউপিতে আজ ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়েছে। এর মধ্যে নরসিংদী সদর উপজেলার ১০টি ও রায়পুরা উপজেলার ১২টি ইউপিতে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হয়।

    বাংলাদেশ সময়: ১১:১৪ পূর্বাহ্ণ | সোমবার, ২৯ নভেম্বর ২০২১

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ