• শিরোনাম

    দৃপ্তগতিতে এগিয়ে যাচ্ছে শেরপুর পল্লী বিদ্যুৎসমিতির গ্রাহকসেবা

    অনলাইন ডেস্ক | বৃহস্পতিবার, ০৮ এপ্রিল ২০২১ | পড়া হয়েছে 243 বার

    দৃপ্তগতিতে এগিয়ে যাচ্ছে শেরপুর পল্লী বিদ্যুৎসমিতির গ্রাহকসেবা
    apps

     

    এনামুল হক,শেরপুরঃ মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্যোগ “ঘরে ঘরে বিদ্যুৎ” এই অঙ্গীকারকে সামনে রেখে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড তথা আরইবি নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে।মাননীয় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার এ উদ্যোগ দ্রুত বাস্তবায়ন করতে শেরপুর জেলাকে শতভাগ বিদ্যুতের আওতায় আনতে শেরপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার মোঃ আলী হোসেন নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছেন। ইতোমধ্যে আরইবি এর আওতাধীন শেরপুর জেলাসহ সারা দেশের ৪৬২টি উপজেলার গ্রীড ভূক্ত এলাকায় শতভাগ বিদ্যুতায়ন সম্পন্ন করা হয়েছে।মাননীয় প্রধানমন্ত্রী কর্তৃক ভিডিও কনফারেন্সিং এর মাধ্যমে ২৮৮টি উপজেলার শতভাগ বিদ্যুতায়নের শুভ উদ্বোধন করা হয়েছে এবং অবশিষ্ট ১৭৩ টি উপজেলা উদ্বোধনের সার্বিক প্রস্তুতি সম্পন্ন হয়েছে। শেরপুর পল্লীবিদ্যুৎ সমিতি জেনারেল ম্যানেজার মোঃ আলী হোসেন সমিতির সিষ্টেম অনুসারে শতভাগ গ্রাহকসেবা নিশ্চিত করতে জুলাই/২০২০-জুন/২০২১ অর্থবছরে শেরপুর জেলার জন্য মোট বিদ্যুৎ ক্রয় করেন ১৮,১৭,৯৭,৭৩৫ কিঃ ওঃ আঃ যার মূল্য ৮৪,৭৫,৯৫,৫৮০ টাকা।পক্ষান্তরে জুলাই/২০২০ইং হতে মার্চ/২০২১ইং পযর্ন্ত মোট বিদ্যুৎ বিক্রয় ১৫,৭৪,২১,০৬৯ কিঃ ওঃ আঃ যার বিক্রয় মূল্য ৭৩,৩৯,৪৪,২৫০টাকা। শেরপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার আলী হোসেনের নির্দেশনায় সমিতির সকল কর্মকর্তা ও কর্মচারীগন গ্রাহকসেবা আরো গতিশীল করতে অবৈধ গ্রাহকদের সমিতির বৈধতার আওতায় ফিরিয়ে আনতে উপরোক্ত সময়ে বিভিন্ন এলাকায় মোবাইল কোর্ট পরিচালনা করে অবৈধ গ্রাহকদের মধ্যে ২৩,৮৯,০৩৩ টাকা জরিমানা ধার্য্য ও ২৩,৮৯,০৩৩ টাকা অবৈধ জরিমানা আদায় করতে সক্ষম হন।সকল সেবা নিশ্চিত করতে শেরপুর বাসীর সহযোগিতা কামনা করেন তিনি। শেরপুরের প্রত্যেন্ত অঞ্চল বিদ্যুতায়নের ফলে নতুন নতুন পোলট্রি খামার, মৎস্য খামার, ডেইরী খামার, ক্ষুদ্র ও মাঝারী শিল্প, কল-কারখানা, কুটির শিল্প, তাঁত শিল্প, ছোট-বড় অনেক ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ইত্যাদি গড়ে উঠছে। কৃষিখাতের বিকাশকল্পে বর্তমানে শেরপুরে প্রায় ৯০ হাজার হেক্টর জমি সেচের আওতায় এসেছে যার ফলে ডিজেল চালিত যন্ত্রপাতি অপেক্ষা বিদ্যুৎ চালিত যন্ত্রপাতি অধিক কার্যকর হচ্ছে। বিদ্যুৎ সুবিধার ফলে উৎপন্ন ফসল খাদ্যের চাহিদা মিটিয়ে উদ্বৃত্ত কৃষি পণ্য রপ্তানী করে মুদ্রা অর্জিত হচ্ছে। অন্যদিকে শেরপুরে বিদ্যুৎ সুবিধা সম্প্রসারণের ফলে জনমানুষের জীবনযাত্রার মান উন্নত হয়েছে।আধুনিক বৈদ্যুতিক সরঞ্জামাদি (লাইট, টিভি, রেফ্রিজারেটর, এয়ারকন্ডিশনার প্রভৃতি) ব্যবহার করে মানুষ আধুনিক নাগরিক সুবিধাদি ভোগ করছে। ফলে বর্তমান সরকারের নির্বাচনী অঙ্গীকার “আমার গ্রাম -আমার শহর” বাস্তবায়নের কাজ তরান্বিত ও সহজতর হচ্ছে। এছাড়াও শেরপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জেনারেল ম্যানেজার আলী হোসেন এর প্রচেষ্টায় মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর অগ্রাধিকারপ্রাপ্ত “আশ্রয়ণ প্রকল্পের” আওতায় ভূমিহীন, গৃহহীন অসহায় পুনর্বাসিত পরিবারের মাঝে বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদান করা হয়েছে। শেরপুরে বসবাসরত অসহায়, গরিব, দুঃস্থ মানুষের চিকিৎসার জন্য স্থাপিত কমিউনিটি ক্লিনিকের সবগুলোতেই আরইবি’র উদ্যোগে শেপবিস-এর মাধ্যমে বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদানের ফলে মা ও শিশুর স্বাস্থ্য সেবার মান বৃদ্ধি পেয়েছে, মৃত্যু ঝুঁকি হ্রাস পাচ্ছে তথা গ্রামীণ জনগণের স্বাস্থ্য সুবিধা বৃদ্ধি পেয়েছে। তাছাড়া সরকারী ও বেসরকারী হাসপাতালেও বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদান করা হয়েছে। এতে গ্রামীণ চিকিৎসা সেবা সূলভ ও সহজতর হচ্ছে। শেরপুরের সর্বত্র নিরবচ্ছিন্ন বিদ্যুৎ সুবিধা সম্প্রসারিত হওয়ায় জনগণের তথ্য ও সেবা প্রাপ্তি নিশ্চিত করার লক্ষ্যে শেরপুরের ৫২ টি ইউনিয়ন পরিষদের Digital Information Center গুলোতে বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদানের ফলে জনগণের দোরগোড়ায় তথ্য ও সেবা প্রাপ্তির জন্য ডিজিটাল প্রযুক্তি পৌঁছানো সম্ভব হয়েছে। এছাড়াও প্রতিটি প্রাথমিক বিদ্যালয়সহ সকল শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বিদ্যুৎ সংযোগ প্রদানের কারণে কম্পিউটার, মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টর ও অন্যান্য আধুনিক উপকরণ ব্যবহার করা সম্ভব হচ্ছে। ফলে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান গুলোতে শিক্ষার গুণগতমান বৃদ্ধি পাচ্ছে।আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহারের মাধ্যমে দেশ ও বর্হিবিশ্বের সকল বিষয়ে জ্ঞান লাভের মাধ্যমে অধিকার বোধ, করণীয়, বর্জনীয় প্রভৃতি বিষয়ে অবগত হওয়ার সুযোগ পাচ্ছে; যার ফলে সামাজিক কুসংস্কার, গোঁড়ামী, অনাচার প্রভৃতির ব্যাপারে সচেতনতা তৈরি হয়েছে। বাংলাদেশ সর্ববৃহৎ বিদ্যুৎ বিতরণকারী প্রতিষ্ঠান হিসেবে প্রতিষ্ঠানিক এবং সামাজিক দায়বদ্ধতা থেকে শেরপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি সমৃদ্ধ বাংলাদেশ বিনির্মাণে তথা বর্তমান সরকারের নির্বাচনী ইশতেহার “তারুণ্যের শক্তি-বাংলাদেশের সমৃদ্ধি” বাস্তবায়নের লক্ষ্যে শেপবিস“মুজিববর্ষ” এ যুব সমাজকে দক্ষ জনশক্তিতে রূপান্তর ও কর্মসংস্থানের নিশ্চয়তা প্রদানের লক্ষ্যে বেকার যুবককে বিভিন্ন কারিগরী প্রশিক্ষণ প্রদান করে যাচ্ছেন। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বপ্নের “সোনার বাংলা” বিনির্মাণের লক্ষ্যে গ্রামীণ জীবনমান উন্নয়ন তথা ভিশন ২০২১ অর্জন পূর্বক ডিজিটাল বাংলাদেশ গঠন, ২০৩০ সালের মধ্যে সাশ্রয়ী, নির্ভরযোগ্য, আধুনিক এবং টেকসই বিদ্যুৎ সরবরাহ নিশ্চিত করার মাধ্যমে এসডিজি বাস্তবায়ন করে ২০৪১ সালের মধ্যে বাংলাদেশকে একটি সুখী, সমৃদ্ধ ও উন্নত রাষ্ট্রে পরিণত করার দৃপ্ত শপথ নিয়ে বাংলাদেশ পল্লী বিদ্যুতায়ন বোর্ড (আরইবি)এর শেরপুর পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির মাধ্যমে শেরপুরে নিরলসভাবে সেবা দিয়ে যাচ্ছে।

    বাংলাদেশ সময়: ৯:৩০ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ০৮ এপ্রিল ২০২১

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ