• শিরোনাম

    জ্ঞানাঞ্জলি গণগ্রন্থাগারের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ, ৫শতাধিক জাতীয় পতাকা তৈরি করে বিনামূল্যে বিতরণ

    অনলাইন ডেস্ক | বুধবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০২০ | পড়া হয়েছে 407 বার

    জ্ঞানাঞ্জলি গণগ্রন্থাগারের ব্যতিক্রমী উদ্যোগ, ৫শতাধিক জাতীয় পতাকা তৈরি করে বিনামূল্যে বিতরণ

    শান্ত বণিক, বিশেষ প্রতিনিধি: নরসিংদীর পলাশ উপজেলার বিভিন্ন বাজারের দোকানপাটের সামনে আকাশে এবার উড়ানো হয়েছে বাংলার লাল সবুজের পতাকা। দেশের জাতীয় পতাকার প্রতি সম্মান আর শ্রদ্ধা ভরে লাখো শহীদদের স্মরণ করতে দোকানে দোকানে পৌছে দেয়া হয়েছে জাতীয় পতাকা। পলাশ উপজেলার কুড়াইতলীতে অবস্থিত জ্ঞানাঞ্জলি গণগ্রন্থাগারের এটি একটি ব্যাতিক্রমী উদ্যোগ। বিজয় দিবসে দোকানে দোকানে উড়ানো হয় লাল সবুজের এই পতাকা। স্বাধীনতার প্রকৃত ইতিহাস ও নতুন প্রজন্মকে দেশ প্রেমিক হিসাবে গড়ে তুলতে এই উদ্যোগ নেন

    “জ্ঞানাঞ্জলি” গ্রন্থাগারের প্রতিষ্ঠাতা ও বর্তমান কমিটির সাধারণ সম্পাদক অপু সেন। তিনি মুজিব জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে পাঁচশতাধিক জাতীয় পতাকা তৈরি করার উদ্যোগ গ্রহণ করে।

    পতাকা গুলো আজ মহান বিজয় দিবসে সূর্যোদয়ের পর সঠিক নিয়মে উত্তোলন করা হয়। জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে জাতির পিতার সম্মানার্থে জ্ঞানাঞ্জলি গণগ্রন্থাগার এই ব্যতিক্রমী উদ্যোগটি গ্রহণ করেছিল এবং অত্যন্ত চমৎকারভাবে বাস্তবায়ন করেছে। পতাকা বিতরণ কর্মসূচির আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন জ্ঞানাঞ্জলি গণগ্রন্থাগারের সভাপতি সজীব দে। এ সময় তিনি বলেন, শিক্ষা মূলক কার্যক্রম ও গণগ্রন্থাগার পরিচালনার পাশাপাশি জাতীয় দিবসগুলো যথাযথভাবে আমরা পালন করার চেষ্টা করে থাকি। এ বছর মুজিব জন্মশত বর্ষ উপলক্ষে বঙ্গবন্ধুর সম্মানার্থে ভিন্ন কিছু করার পরিকল্পনা ছিল। সেই লক্ষ্যে গত মাসের ২৫ তারিখ থেকে পতাকা তৈরির কাজ শুরু করা হয়। তিনি আরো বলেন, সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা ও বর্তমান কমিটির সাধারণ সম্পাদক অপু সেন এবং সহ-প্রতিষ্ঠাতা ও বর্তমান কমিটির অর্থ সম্পাদক জবা মিত্র পতাকাগুলো নিজ হাতে তৈরি করেছেন। শুধুমাত্র এসব পতাকা নিজ হাতে তৈরি করার জন্য সেলাইয়ের কাজ শিখেছেন জবা মিত্র। যা আমাদের জন্য খুবই গর্বের একটি বিষয়।

    জ্ঞানাঞ্জলি গণগ্রন্থাগারের এই ব্যতিক্রমী উদ্যোগকে সাধুবাদ জানিয়ে প্রাণতোষ আর্ট স্কুলের প্রতিষ্ঠাতা প্রাণতোষ দত্ত বলেন, নিঃসন্দেহে জ্ঞানাঞ্জলি গণগ্রান্থাগারের এ পরিকল্পনা এবং বাস্তবায়ন ছিল একটি দুঃসাহসিক কাজ। জাতীয় পতাকা একটি দেশের স্বাধীনতার প্রতীক। ডিসেম্বর এলেই চারপাশ ছেয়ে যায় বিজয়ের রঙে। বিজয়ের উৎসবে যেমন মেতে ওঠে বাংলাদেশ তেমনি বাংলার কৃতি সন্তানদের হারানোর দুঃখও মনকে আচ্ছন্ন করে যায়। আজকে বিজয়ের দিনে পলাশ উপজেলার বিভিন্ন দোকানপাটে দেখা গেছে শ্রদ্ধা ও গৌরবের প্রাণোচ্ছ্বাস তেমনি পতপত করে উড়েছে বাংলাদেশের গৌরবের অনন্য প্রতীক- বাংলাদেশের জাতীয় পতাকা।

    বাংলাদেশ সময়: ৯:৩৮ অপরাহ্ণ | বুধবার, ১৬ ডিসেম্বর ২০২০

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    পরম শ্রদ্ধেয় বাবার স্মরণে

    ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০

    আজ বিজয়া দশমী

    ২৬ অক্টোবর ২০২০

    আর্কাইভ