• শিরোনাম

    জামালপুরে যৌতুক না দেওয়ায় স্ত্রীকে নির্যাতন’ স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা, স্বামী মনির গ্রেফতার

    জামালপুর প্রতিনিধি: | বুধবার, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২২ | পড়া হয়েছে 84 বার

    জামালপুরে যৌতুক না দেওয়ায় স্ত্রীকে নির্যাতন’ স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা, স্বামী মনির গ্রেফতার
    apps

    জামালপুর সদর উপজেলা শরিফপুর ইউনিয়নের গোদাশিমলা গ্রামের আবুল হোসেন এর মেয়ে আখি আক্তার(২৪) ।তার স্বামীর বিরুদ্ধে জামালপুর সদর থানায়, ১১(গ) ৩০ নারী ও শিশু নির্যাতন দমন আইন, ২০০০ (সংশোধিতা ২০২০ যৌতুকের দাবিতে মারপিট করিয়া নিলাফোলা যখম করার সহায়তা করা অপরাধ) । ১১/০৯/২২ রবিবার জামালপুর সদর থানায় স্বামী মনির সহ ৫ জনকে আসামি দিয়ে মামলাটি দায়ের করেন স্ত্রী আখি আক্তার। আসামি মনির হোসেন পিতা মোস্তফা শেখ, বেল্টিয়াম জামালপুর, এর সহিত আনুমানিক ৬ বছর আগে ইসলামী শরীয়ত মোতাবেক বিবাহবন্ধনে আবদ্ধ হন । তাদের সংসার জীবনে দুটি সন্তান জন্মগ্রহণ করেছেন। একটি ছেলে একটি মেয়ে সহ বেশ কিছুদিন সংসার ভালো চলছিল তাদের। এমন অবস্থায় দাঁড়ায় অর্থ লোভী স্বামী মনির হোসেন তার শ্বশুরবাড়ি থেকে আসবাবপত্র নগদ টাকা ও অলংকার পত্রসহ অনেক আগেই তার বাড়িতে আনতে বাধ্য করেন । মনিরের পরিবারের বাবা-মা ভাই-বোন সহ-সবাই আখিকে শারীরিক এবং মানসিক নির্যাতন করতেন। মনিরের নির্যাতনে গত ৪মে ২০২২ইং তারিখে জামালপুর জেনারেল হাসপাতালে গুরুতর আহত হয়ে ভর্তি হন আঁখি। বেশ কিছুদিন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় থাকার পর তিনি সুস্থ হন। আঁখি জানান, তার স্বামী ও শ্বশুর শাশুড়ী যে ভাবে নির্যাতন শুরু করেছে মনে হয় না আমি আর কোনদিন সংসার করতে পারবো। এক পর্যায়ে গ্রামের মাতাব্বর গন দুই সন্তানের কথা ভেবে তাদের দাম্পত্য জীবন পুনরায় সুন্দর করার জন্য মীমাংসায় জন্য এগিয়ে আসলেও কিন্তু অর্থলোভী বদমেজাজি লোক মনির হোসেন কোন ভাবেই তা মানতে রাজি হইনি। ‌‌ প্রতিনিয়ত আখি আক্তার কে যৌতুকের টাকা( ৫ লাখ) নিয়ে আসতে বলে,যৌতুক ছাড়া আসায় পুনরায় তাহাকে মারধর করেন, এবং তার বাবার বাড়িতে পাঠিয়ে দেন। তাই স্ত্রী আঁখি বাধ্য হয়ে স্বামীর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। আসামি মনির হোসেনকে জামালপুর সদর থানা এস আই ইশতিয়াক আহমেদ ১১ সেপ্টেম্বর ২০২২ সন্ধ্যায় মনিরকে বেলটিয়া থেকে গ্রেফতার করেন। মামলা তদন্তকারী কর্মকর্তা জানান,আসামী আমাদের হেফাজতে আছে, আদালতে প্রেরণ করবো। অসহায় দুই সন্তানের মা, তার স্বামী সংসার ফিরিয়ে পাওয়ার জন্য বিভিন্ন মানুষের দ্বারে দ্বারে যাওয়ার পরেও কোন লাভ হয়নি। তাই তিনি আইনের আশ্রয় নিতে বাধ্য হন। একই সাথে আসামের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দাবি করেন তিনি। গ্রেপতারের পর তাকে তাকে জিজ্ঞেসা করা হলে তিনি জানানএলাকায় মিমাংসার জন্য সামনে বসার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে।

    বাংলাদেশ সময়: ৯:৫১ অপরাহ্ণ | বুধবার, ১৪ সেপ্টেম্বর ২০২২

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ