• শিরোনাম

    জামালপুরে বন্ধুর এইচআইভি এইডস বিষয়ক মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত

    শারমিন আক্তার | বুধবার, ২৩ নভেম্বর ২০২২ | পড়া হয়েছে 36 বার

    জামালপুরে বন্ধুর এইচআইভি এইডস বিষয়ক মত বিনিময় সভা অনুষ্ঠিত
    apps

    জামালপুর বন্ধু সোস্যাল ওয়েলফেয়ার সোসাইটি আয়োজিত এইচআইভি, এইড্স বিষয়ক মত বিনিময় সভা জামালপুর পরিবার পরিকল্পনা সমিতি (এফপিএবি) চালাপাড়া এর সভাকক্ষে বুধবার ( ২৩ নভেম্বর) সকাল ১১.০০ ঘটিকায় অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত সভায় বিভিন্ন শ্রেণি পেশার প্রতিনিধি সরকারি ও বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি, স্বাস্থ্য সেবাদানকারি প্রতিষ্ঠানের প্রতিনিধি, সাংবাদিক, ধর্মীয় ও আইন প্রয়োগকারী সংস্থার প্রতিনিধি, আইনজীবী ব্যবসায়ী ও শিক্ষক প্রতিনিধিগন উপস্থিত থেকে এইচআইভি/এইড্স প্রতিরোধে বিভিন্ন কার্যক্রম বাস্তবায়ন ও এইচআইভি/এইড্স প্রতিরোধে কার্যকর ভূমিকা পালনের সিদ্ধান্ত গ্রহন করেন।

    এ মতবিনিময় সভায় সভাপতিত্ব করেন জামালপুর জেলার সিভিল সার্জন অফিসের প্রতিনিধি হিসেবে ডাঃ স্বাগত সাহা। প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জামালপুর জেলা সমাজসেবা কার্যালয়ের উপপরিচালক রাজু আহমেদ। আরো উপস্থিত থেকে বক্তব্য দেন সদর থানার এএসআই মোঃ খোরশেদ আলম, এএসআই তৃনা রানী ঠাকুর, সিভিল সার্জন অফিস এর মেডিকেল অফিসার ডাঃ স্বাগত সাহা, তারকা সংঘের সভাপতি ও মানবাধিকার কর্মী মোঃ খোরশেদ আলম, এফপিএবির কো-অর্ডিনেটর মাহিনূর সিদ্দিকা, জেলা জজ আদালতের এডভোকেট দিলরুবা পারভীন, উন্নয়ন সংঘের প্রকল্প কর্মকর্তা মোঃ আরজু মিয়া, কল্যাণ সংস্থার প্রকল্প কর্মকর্তা মোঃ রাসেল মিয়া, প্রতিবন্ধী সেবা সংস্থার সভাপতি মোঃ আমজাদ আলী সহ আরও অনেকে।

    সাংবাদিক, তারকা সংঘের সভাপতি ও মানবাধিকার কর্মী মোঃ খোরশেদ আলম তিনি বন্ধু সোসাল ওয়েলফেয়ার সোসাইটির কার্যক্রম নিয়ে প্রশংসা করেন এবং তিনি বলেন, এদেরকে সমাজের মূল শ্রোত ধারায় ফিরিয়ে আনতে হবে, এর জন্য প্রয়োজনীয় শিক্ষা, প্রশিক্ষণ ও পূর্ণবাসন প্রয়োজন।

    এছাড়াও অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক ও গনমাধ্যমকর্মী ডা.মোঃ সফিকুল ইসলাম আজাদ খান জামালপুর প্রমুখ।

    উক্ত মতবিনিময় সভা পরিচালনা করেন বন্ধু সোস্যাল ওয়েলফেয়ার সোসাইটির সাব-ডিআইসি ইনচার্জ মোঃ বেলাল হোসেন তিনি বন্ধুর সকল নীতি, কার্যক্রম এবং পদ্ধতিসমূহ স্বাস্থ্যসেবার জাতীয় অগ্রাধিকার এবং এইচআইভি ও এইড্স এর জাতীয় কৌশলগত পরিকল্পনার সাথে সংগতিপূর্ণ। বাংলাদেশ সরকারের সহস্রাব্দ উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা বিশেষ করে ১, ৩ এবং ৬ নং গোলের লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে বন্ধুর বিভিন্ন কার্যক্রম উল্লেখযোগ্য অবদান রেখেছে। দেশের ১৮ টি জেলায় ৩১ টি সুসজ্জিত স্বাস্থ্যসেবা কেন্দ্রের মাধ্যমে স্বাস্থ্য, স্বাস্থ্য অধিকার এবং সামাজিক সেবা কার্যক্রম বাস্তবায়নের লক্ষ্যে বন্ধু চতুর্থ কৌশলগত পরিকল্পনা তৈরী করেছে যেখানে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা বিশেষ করে ১, ৩, ৫, ১০, ১৬ এবং ১৭ নং গোলের লক্ষ্যমাত্রা (অর্থাৎ দারিদ্র্য দূরীকরণ, সুস্বাস্থ্য অর্জন, লৈঙ্গিক সমতা, অসমতা হ্রাস, শান্তি ও ন্যায়বিচার এবং বৈশ্বিক অংশীদারিত্ব) অর্জনে অর্থপূর্ণ অবদান রাখতে সক্ষম। বন্ধু তার নানামূখী কর্মসূচি বাস্তবায়নের মাধ্যমে সুস্বাস্থ্য নিশ্চিতকরণসহ এসডিজি’র সুনির্দিষ্ট লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে সক্রিয়ভাবে গুরুত্বপূর্ণ অবদান রেখে চলেছে। তিনি বন্ধুর ডিআইসি ও সাব-ডিআইসি ভিত্তিক সকল কার্যক্রম সর্ম্পকে বর্ণনা করেন এবং বলেন, হিজড়া জনগোষ্ঠিকে ইতিমধ্যে বংলাদেশ সরকার সাংবিধানিক ভাবে স্বীকৃতি দিয়েছেন। জামালপুরে আমাদের বেনিফিশিয়ারীদের মধ্যে কোভিড-১৯ কালীন বিভিন্ন সময়ে ত্রাণ সমাগ্রী বিতরণ করা হয়। ড্রপ ইন সেন্টারে আগত এমএসএম হিজড়া জনগোষ্ঠির মধ্যে বিনামূল্যে যৌন রোগ ও সাধারন রোগের চিকিৎসা, কাউন্সিলিং এবং স্বেচ্ছায় রক্ত পরীক্ষার ব্যবস্থা আছে। এছাড়াও এইচআইভি ও যৌন রোগ থেকে বাঁচার জন্য বিনামূল্যে কনডম ও লুব্রিকেন্ট বিতরণ করা হয়। এইচআইভি কিভাবে ছড়ায়/ কিভাবে ছড়ায় না এ সম্পর্কে বিষদ ভাবে আলোচনা করেন।

    বাংলাদেশ সময়: ৫:০৫ অপরাহ্ণ | বুধবার, ২৩ নভেম্বর ২০২২

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ