• শিরোনাম

    চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন প্রচারনায় মেয়র ও কাউন্সিলর প্রার্থীরা

    সৃজন দত্ত, চট্টগ্রাম : | সোমবার, ১১ জানুয়ারি ২০২১ | পড়া হয়েছে 134 বার

    apps

    সৃজন দত্ত, চট্টগ্রাম

    প্রতিক নিয়ে প্রার্থীরা তাদের প্রচারণায় নামায় সরব হয়ে উঠেছে বন্দরনগরী চট্টগ্রাম । প্রায় ১০ মাস পর ৮ জানুয়ারী থেকে পুরোদমে ভোটের মাঠে নামছেন ৭ মেয়র ও ২৩৭ জন কাউন্সিলর প্রার্থী। প্রার্থীরা প্রতিদিন দুপুর ২টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত একটানা প্রচারণা চালাতে পারবেন বলে জানিয়েছেন চট্টগ্রাম আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ও চসিক নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান। শুক্রবার জুমার নামাজের পর প্রার্থীরা আনুষ্ঠানিক প্রচার কার্যক্রম শুরু করেন। করোনাকালীন সময়ে যতদূর সম্ভব মাস্ক পরে, সামাজিক দূরত্ব মেনে দলীয় কর্মী ও সমর্থকদের নিয়ে মেয়র এবং কাউন্সিলর প্রার্থীরা প্রচারণা চালিয়ে যাচ্ছেন। ২৭ জানুয়ারি চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশনের ভোট। নির্বাচনে হাড্ডাহাড্ডি লড়াই হবে আওয়ামী লীগ মেয়র প্রার্থী মুক্তিযোদ্ধা এম রেজাউল করিম চৌধুরী এবং বিএনপি মেয়র প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেনের মধ্যে। তবে অধিকাংশ ওয়ার্ডে বিদ্রেহী প্রার্থী থাকায় জটিল হয়ে পড়েছে কাউন্সিলর পদে ভোটের হিসাব-নিকাশ।ইতিমধ্যে বিদ্রোহী প্রার্থীদের বিষয়ে দলের হাইকমান্ড থেকে সতর্ক করা হলেও শেষ পর্যন্ত মনে হচ্ছে তারা মাঠেই থাকবেন। মূলত মেয়র পদে ৭ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করলেও নৌকা ও ধানের শীষ প্রতীকের দুই মেয়র প্রার্থী নতুন কৌশল নিয়ে প্রচারে নামার পরিকল্পনা করছেন। মেয়র পদে অন্য প্রার্থীরা হচ্ছেন, বাংলাদেশ ইসলামিক ফ্রন্টের এম এ মতিন( মোমবাতি), ন্যাশনাল পিপলস পাটির আবুল মনজুর( আম প্রতীক),ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশের ওয়াহেদ মুরাদ( চেয়ার), ইসলামি আন্দোলন বাংলাদেশের জান্নাতুল ইসলাম( হাতপাকা), এবং স্বতন্ত্র প্রার্থী খোকন চৌধুরী। গত বছরের মার্চ মাসে চসিক নির্বাচনের মেয়র এবং কাউন্সিলর প্রার্থীদের মধ্যে প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়। গত বছরের ২৯ মার্চ ভোট গ্রহণের তারিখ ছিল। কিন্তু করোনা মহামারী আকার ধারণ করায় ২১ মার্চ নির্বাচন স্থগিত করে নির্বাচন কমিশন। প্রায় ১০ মাস পর স্থগিতকৃত এই নির্বাচন আগামী ২৭ জানুয়ারি অনুষ্ঠিত হবে। চট্টগ্রাম আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা ও চসিক নির্বাচনের রিটার্নিং কর্মকর্তা মুহাম্মদ হাসানুজ্জামান জানান, প্রার্থীরা প্রচারনার ক্ষেত্রে প্রতিটি ওয়ার্ডে একটি করে মাইক চালাতে পারবেন। গণসংযোগ শুরুর প্রাক্কালে আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী এম রেজাউল করিম চৌধুরী বলেন, নৌকা স্বাধীনতার প্রতীক, মুক্তির প্রতীক। নৌকা মার্কায় চট্টগ্রামের সর্বস্তরের মানুষ ঐক্যবদ্ধ হয়ে ভোট দিয়ে আমাকে জয়যুক্ত করবে বলে আমি দৃঢ়ভাবে আশাবাদী। বিএনপির মেয়র প্রার্থী ডা. শাহাদাত হোসেন বলেন,মানুষ গনতন্ত্রের মুক্তির জন্য এবার ধানের শীষ প্রতীকে ভোট দিবেন।সুষ্ঠু নির্বাচন হলে বিপুল ভোটে জয় হবো বলে আমি আশাবাদী। চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনে এবার ৭৩৫টি ভোট কেন্দ্র ও ৪ হাজার ৮৮৬টি বুথে ইভিএমে ভোট গ্রহণ অনুষ্ঠিত হবে। নির্বাচনে মোট ১৯ লাখ ৩৮ হাজার ৭০৬জন ভোটার ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। এর মধ্যে ৯ লাখ৯২ হাজার৩৩ জন পুরুষ এবং ৯ লাখ ৪৬ হাজার ৬৭৩জন মহিলা ভোটার।

    বাংলাদেশ সময়: ৬:০০ অপরাহ্ণ | সোমবার, ১১ জানুয়ারি ২০২১

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ