• শিরোনাম

    গাইবান্ধা সুন্দরগঞ্জে বেড়া দিয়ে নারী শিশু নির্যাতন মামলার বাদীকে অবরুদ্ধ করল আসামী।

    গাইবান্ধা জেলা প্রতিনিধিঃ   | শুক্রবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২২ | পড়া হয়েছে 13 বার

    গাইবান্ধা সুন্দরগঞ্জে বেড়া দিয়ে নারী শিশু নির্যাতন মামলার বাদীকে অবরুদ্ধ করল আসামী।
    apps
    গাইবান্ধা জেলার সুন্দরগঞ্জ উপজেলার ছাপড় হাটী ইউনিয়নে নারী শিশু নির্যাতন মামলার আসামী বাদীর বাড়ির রাস্তায় বেড়া দিয়ে অবরুদ্ধ করে রেখেছে।  গত ১৩ সেপ্টেম্বর বিকালে ঘটনা স্থল পরিদর্শন করে জানা যায়, দক্ষিণ মরুয়াদহ গ্রামে  মৃত সাহাব উদ্দিনের ছেলে মোঃ ছিদ্দিক মিয়ার মেয়ে আয়শা ছিদ্দিকা সীমু(১৩) ধাপাচিলা দ্বি মুখী উচ্চ বিদ্যালয়ের ৭ম শ্রেণীর ছাত্রীকে একই গ্রামের রবিউলের ছেলে মোঃ মোশাররফ মিয়া(২২) গত ১৫/৯/২০২১ইং তারিখে বেলা অনুমান ১২.৩০ টায় সময় প্রাইভেট পড়ে আসার সময় অপহরণ করে। ছিদ্দিক মিয়া তার মেয়েকে খুঁজে না পাওয়ায় গত ১/১০/২০২১ইং তারিখে সুন্দরগঞ্জ থানায় একটি সাধারণ ডায়রী করেন। যাহার নম্বরঃ২২/২০২১।থানার অফিসার ইনচার্জ অভিযোগের তদন্ত ভার এস আই আবুল কালাম আজাদের উপর ন্যাস্ত করলে তিনি  ঘটনা স্থল পরিদর্শন কালে সত্যতা নিশ্চিত করে এবং বাংলাদেশের সকল থানায় বেতার বার্তা প্রেরন করেন।যাহার নম্বর ৯৯। এস আই আবুল কালাম আজাদ অভিযুক্ত মোশারফ হোসেনের ০১৭৬৭১১৪২৫৭ মোবাইল নম্বর ফোনের কল সিডিআর সংগ্রহ করে এবং পর্যালোচনা করে জানতে পায় মোশাররফ ও তার মেয়ে আয়শা ছিদ্দিকা সীমা নারায়নগঞ্জের সিদ্ধিরগঞ্জ থানা এলাকায় অবস্থান নিশ্চিত করুনে এবং এস আই আবুল কালাম আজাদ সঙ্গী ফোর্স নিয়ে নারায়ণগঞ্জে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার সহযোগীতায় মোশাররফ ও সীমাকে সিদ্ধিরগঞ্জ থানার তাতখানা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের দক্ষিণ ভারাটিয়ে শুকুর আলীর স্ত্রী আমিনা বেগম(৬৫) বাড়ি থেকে উদ্ধার করেন।সীমার বাবা ছিদ্দিক মিয়া ১/মোশাররফ(২২) পিতাঃ রবিউল ও তার সহ যোগী দুই জন ২/আশরাফুল(৩৮) পিতা লাল মিয়া, তার স্ত্রী ৩/মোছাঃ রেহেনা বেগম কে আসামী করে বিজ্ঞ সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিষ্ট্রেট আমলী আদালতে সুন্দরগঞ্জ  থানার এফ আই আর নং-০৪/৩২৮ তারিখ ৪/১০/২০২১,জি আর নং-৩২৮/২১, ৭/৩০, ২০০০ সালে নারী শিশু নির্যাতন দমন আইন( সংশেনী/০৩) ধারায় মামলা করেন। মামলা চলমান অবস্থায় বরিউল কয়েক দফা ছিদ্দিকের বাড়ি বাড়ানোর রাস্তায় বেড়া দিয়ে বন্ধ করে দেয়।এলাকা বাসী জানায় ছিদ্দিকের পরিবার যে রাস্তা দিয়ে চলাচল করে সেটা বদিউলের একার জমির সীমা নয়।সরু রাস্তাটি দক্ষিণ পাশ্বের জমির মালিক হেরেন্দ্র নাথ ও উত্তর পাশ্বের জমির মালিক রবিউল উভয়ের সীমানায় সরু রাস্তাটি।রবিউল উভয়ের জমির সীমানায় বেড়া দিয়ে তার পরিবারকে অবরুদ্ধ করে রেখেছে। এবিষয় কয়েক দফা এলাকা চেয়ারম্যান ও গণমান্য ব্যাক্তিদেরকে নিয়ে মিটিং সালিশ হলেও বরিউল ও তার ছেলে মোশাররফ নিয়মিত ভাবেই এমন কার্যকলাপ চালিয়ে যাচ্ছে বলে এলাকা জানায়।

    বাংলাদেশ সময়: ৮:৫৫ অপরাহ্ণ | শুক্রবার, ১৬ সেপ্টেম্বর ২০২২

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ