• শিরোনাম

    উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করে মারধরের শিকার ছাত্রী্র পরিবার এবার অবরুদ্ধ!

     টি এম এ হাসান, সিরাজগঞ্জ | মঙ্গলবার, ১২ অক্টোবর ২০২১ | পড়া হয়েছে 30 বার

    উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করে মারধরের শিকার ছাত্রী্র পরিবার এবার অবরুদ্ধ!
    apps

    সিরাজগঞ্জের তাড়াশে নিজেকে উত্ত্যক্তের প্রতিবাদ করায় দশম শ্রেণির সেই ছাত্রীকে (১৫) মারধর করার পরে এবার সেই শিক্ষার্থীর বাড়ির সামনে বেড়া দিয়ে অবরুদ্ধ করে তাকে ও তার পরিবারকে বাড়ি থেকে বের হতে দিচ্ছেনা অভিযুক্তরা এমনই অভিযোগ করেছেন ঐ ছাত্রী ও তার বাবা-মা। এদিকে উত্ত্যক্ত ও মারধর করার দিনই গত মঙ্গলবার (৫ অক্টোবর) উত্ত্যক্তকারী নওগাঁ ইউনিয়নের কালুপাড়া গ্রামের আশরাফ আলীর ছেলে রুবেল (১৮), দেলবার হোসেনের ছেলে নয়ন (২০) ও পলানের ছেলে নাজমুল হকের (২০) বিরুদ্ধে থানায় অভিযোগ করেছেন ভুক্তভোগী ছাত্রীর বাবা। কিন্তু এখন পর্যন্ত আটক হয়নি কেওই। তবে পুলিশ বলছে তাদের আটকে অভিযান চলছে। এবং পুলিশ গিয়ে ভেঙ্গে দিয়েছে সেই বাশের বেড়া। তবে ভুক্তভোগীর পরিবার অসহায় হওয়ায় বিচার পাওয়া নিয়ে শংকায় রয়েছে তারা। বেড়া দিয়ে অবরুদ্ধ করার বিষয়টি নিশ্চিত করে তাড়াশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফজলে আশিক বলেন, আমরা জানা মাত্রই পুলিশ গিয়ে সেই বেড়া অপসারন করে দিয়েছে। ঘটনার পর থেকে আসামীরা পলাতক থাকায় আটক করা যাচ্ছেনা। তবে তাদেরকে আটক করার জন্য চেষ্টা চলছে। থানার অভিযোগ, প্রত্যক্ষদর্শী অটোভ্যান চালক নাজমুল হক ও ঐ ছাত্রীর সাথে কথা বলে জানা গেছে, তাড়াশ আজিমনগর মহিলা কারিগরি স্কুল অ্যান্ড কলেজের অদূরে অটোভ্যান থেকে নামিয়ে রাস্তার ওপর তাকে উত্ত্যক্ত করে তিনজন। এসবের প্রতিবাদ করলে তাকে প্রকাশ্যে মারধর করে সেই তিন উত্যক্তকারী। এরপর শনিবার তাদের বাড়ি থেকে বেড় হওয়ার রাস্তায় বাঁশের বেড়া দেয় তারা। ভুক্তভোগী ছাত্রীর নিকটতম প্রতিবেশী এক গৃহবধূ বলেন, ঐ ছাত্রী সহায় সম্বলহীন বাবা-মার সন্তান। জায়গা জমি না থাকায় তাদেরকে আমাদের পুকুর পারে থাকতে দিয়েছি। ঐ ছাত্রী অসহায় হওয়ায় তার ও তার পরিবারের মানুষজনের উপর অমানবিক নির্যাতন করেছে অভিযুক্তরা। আজিমনগর মহিলা কারিগরি স্কুল অ্যান্ড কলেজের ভারপ্রাপ্ত সুপারিনটেনডেন্ট মিজানুর রহমান বলেন, ঐ ছাত্রী আমাদের বিদ্যালয়ে পড়ালেখা করে। আগেও বিদ্যালয়ে আসা যাওয়ার সময় রাস্তার মধ্যে অভিযুক্ত নয়ন, রুবেল ও নাজমুল ঐ ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করেছে। তাড়াশ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) ফজলে আশিক বলেন, আমরা জানা মাত্রই রবিবার বিকালের দিকে গিয়ে বাঁশের বেড়া কেটে ঐ ছাত্রী ও তার পরিবারের মানুষ জনের চলাচল বাধা মুক্ত করে দেওয়া হয়েছে। তবে অভিযোগটি কেন এখনও মামলা হিসাবে নেওয়া হয়নি জানতে চাইলে বলেন, আমরা এইটা নিয়ে কাজ করছি। দু-একেই এটিকে মামলা হিসাবে রুজু করা হবে। ### টি এম এ হাসান সিরাজগঞ্জ

    বাংলাদেশ সময়: ১১:৫১ পূর্বাহ্ণ | মঙ্গলবার, ১২ অক্টোবর ২০২১

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ