• শিরোনাম

    আধুনিক চাষাবাদ পদ্ধতিতে আমন ধানের বীজ উৎপাদন বিষয়ক মাঠ দিবস

    শেরপুর নকলা প্রতিনিধি: | বৃহস্পতিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১ | পড়া হয়েছে 101 বার

    আধুনিক চাষাবাদ পদ্ধতিতে আমন ধানের বীজ উৎপাদন বিষয়ক মাঠ দিবস
    apps

    শেরপুর নকলায় ২ নং নকলা ইউনিয়নে ধুকুরিয়া গ্রামে ইউরোপীয় ইউনিয়নের অর্থায়নে ট্রেইডক্রাফট এক্সচেঞ্জ ও আরডিএস এর বাস্তবায়নাধীন ক্ষমতায়ন প্রকল্পের উদ্যোগে আধুনিক চাষাবাদ পদ্ধতিতে আমন ধানের বীজ উৎপাদন প্রদর্শনীর মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়েছে। বুধবার (১০ ডিসেম্বর ) ইউরোপিয়ান ইউনিয়নের অর্থায়নে ক্রিস্টিয়ান এইড ও ট্রেড ক্রাফট এক্সচেঞ্জ এর সহযোগিতায় এবং ক্ষমতায়ন প্রকল্পের বাস্তবায়নে নকলা ইউনিয়নের ধুকুরিয়া গ্রামের মহিউদ্দিন সেলিম সাহেবের বাড়ির আঙ্গিনায় গ্রামের দুই শতাধিক কৃষক,কৃষাণী নিয়ে এ মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়।ইউরোপীয় ইউনিয়ন ট্রেইডক্রাফট এক্সচেঞ্জ এর উপজেলা কৃষি উৎপাদন সমিতির সাধারণ সম্পাদক দুলাল হোসেনের সঞ্চালনায় উপজেলা কৃষি উৎপাদন সমিতির সভাপতি মহিউদ্দিন সেলিম সাহেবের সভাপতিত্বে , মাঠ দিবসে বক্তব্য রাখেন উপজেলা কৃষি সম্প্রসারন কর্মকর্তা শেখ ফজলুল হক মনি, উপজেলা কৃষি সম্প্রসারন অফিসার মো: মাহমুদুল হাসান মোসা, ২ নং নকলা ইউনিয়নের ইউপি সদস্য ইয়াজত আলি, উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা রেজাউল হক, উপসহকারী কৃষি কর্মকর্তা আতিকুর রহমান উপ-সহকারী প্রানি সম্পদ কর্মকর্তা মো: আসাদুজ্জামান, এসময় এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গসহ মাঠ দিবসের আলোচনায় প্রায় ২ শতাধীক কৃষক-কৃষাণীগণ উপস্থিত ছিল। উপজেলা কৃষি উৎপাদন সমিতির সভাপতি মুসলিম ডায়াগনস্টিক সেন্টার কর্ণধার মহিউদ্দিন সেলিম তার বক্তব্যে বলেন , নিজস্ব ভাবে সঠিক পদ্ধতিতে বীজ উৎপাদিত ধানের জাতগুলোর চাষাবাদ বেশি বেশি করার প্রতি জোর দিয়ে বলেন, এ জাতের ধানের গাছ মজবুত ও পাতা খাড়া হয়। শীষের ধান পেকে গেলেও গাছ সবুজ থাকে। গাছ খাটো তাই হেলে পড়ে না। খড়ের চেয়ে ধানের উৎপাদন বেশি হয়। এ জাতের ধানে পোকা ও রোগের আক্রমণ কম হয় এবং অধিক কুশি গজায়। এছাড়া এ ধান থেকে বীজ সংরক্ষণ করা যায়। তিনি বলেন স্বল্প মেয়াদী ফসলগুলো বেশি বেশি করে চাষ করতে হবে। এতে বেশি লাভবান হওয়া যায়। মাঠ দিবসে বক্তারা আধুনিক চাষাবাদ পদ্ধতিতে আমন ধানের বীজ উৎপাদনের বিস্তারিত আলোচনা করেন

    বাংলাদেশ সময়: ৫:১৮ অপরাহ্ণ | বৃহস্পতিবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২১

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ