• শিরোনাম

    আটক নৌকা ফেরত পেয়ে মহাখুশি মেঘনা নদীর জেলেরা

     রিয়াজ উদ্দিন রায়পুর( লক্ষ্মীপুর) প্রতিনিধি | রবিবার, ০৬ জুন ২০২১ | পড়া হয়েছে 102 বার

    apps

    লক্ষ্মীপুর জেলার রায়পুর উপজেলায় নিষিদ্ধ সময় মেঘনা নদীতে আটক নৌকা নিলাম ডাকের মাধ্যমে জেলে দের মাঝে ফেরত দেওয়া হয়। ইলিশের প্রজণণ মৌসুমে দুই মাস (মার্চ ও এপ্রিল) নিষেধাজ্ঞার সময় মেঘনায় অভিযান চালিয়ে নৌকাগুলো আটক করে লক্ষ্মীপুরের রায়পুর-কোষ্টগার্ড। গত বৃহস্পতিবার (৩ই জুন) দুপুরে মেঘনার পাড়ে সাইজুদ্দিন মোল্লার মাছঘাটে সেই নৌকাগুলোর কিছু সংখ্যক নৌকা নিলামে মাধ্যমে ফেরত দেয় ভাম্যমান আদালত। এবং বাকী নৌকাগুলো আজ রবিবার (৬ই জুন) ফেরত দিয়েছে ভাম্যমান আদালত, ফেরর নৌকাগুলো পেয়ে মহাখুশি হয়েছে জেলেরা। উজেলা মৎস্য কর্মকর্তা জানালেন, ১লা মে থেকে নদীতে মাছ ধরা শুরু হলেও আগামী আরো দু’ মাস চলবে জাটকা সংরক্ষণ অভিযান। এসময় নদীতে জেলেদের ইলিশ ধরার উপযোগী জাল ব্যাহারের জন্য পরামর্শ দেন তিনি। উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা বেলায়েত হোসেন বলেন. রামগতি চর আলেকজান্ডার থেকে রায়পুর ও চাঁদপুরের ষাটনল পর্যন্ত মেঘনা নদীর একশ কিলোমিটার এলাকায় জাটকা সংরক্ষণের লক্ষে মার্চ-এপ্রিল ২ মাস সকল ধরনের মাছ ধরা নিষিদ্ধ ছিল। এই সময়ে আটক করা হয় নৌকাগুলো প্রায় ৮ লাখ টাকা জরিমানা দিতে হয় তাদের। বৃহস্পতিবার বেশকিছু জেলেদের নৌকা দেয়া হয়েছে। আটককৃত বাকী নৌকাগুলো রোববার অন্যদেরকে দেয়া হবে। এতে খুশি জেলে পরিবার ও মৎস্য ব্যবসায়ীরা। নিলামের সময় উপস্থিত ছিলেন,রায়পুর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা জনাব,সাবরীন চৌধুরী, সহকারি কমিশনার (ভূমি) আক্তার জাহান সাথী, সিনিয়র মৎস কর্মকর্তা বেলায়েত হোসেন, ০১নং দক্ষিন-চর আবাবিল ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান শহিদ উল্যা,০২ নং উত্তর চরবংশী ইউনিয়নপরিষদের চেয়ারম্যান আবুল হোসেন হাওলাদারসহ কোষ্টগার্ডের কর্মকর্তা সাংবাদিক ও এলাকাবাসি। এসময় মৎস্য কর্মকর্তা জানান ১০ ইঞ্চির নিচে জাটকা শিকার করলে তাদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে। নিষিদ্ধ সময়ে জেলেদের মাঝে জনপ্রতি ৪০ কেজি হারে খাদ্য সহায়তা দিয়েছেন সরকার।

    বাংলাদেশ সময়: ১:৪২ অপরাহ্ণ | রবিবার, ০৬ জুন ২০২১

    dainikbanglarnabokantha.com |

    এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

    আর্কাইভ